ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮শে জানুয়ারি ২০২১ ইং | ১৫ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গাংনীতে চাকরী দেয়ার নামে ১৫ লাখ টাকা নিয়ে ফেরত না দেয়ায় মেয়রের বিরুদ্ধে শহীদ মিনারে মৌমিতা খাতুনের আমরণ অনশন

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম মেহেরপুর প্রতিনিধি : চাকরী দেয়ার নামে ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েচাকরী দিতে না পারায় পাওনা টাকা ফেরত পেতে গাংনী মেয়রের বিরুদ্ধে শহীদ মিনারে মৌমিতা খাতুন পলির আমরণ অনশন শুরু করেছে। আজ বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ট) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে পাওনা টাকার দাবিতে গাংনী পৌর এলাকার শিশিরপাড়া গ্রামের শাহাবুদ্দীন অহমেদ ওরফে বাহাদুরের মেয়ে মৌমিতা খাতুন পলি ও তার মা শহীদ মিনারে আমরন অনশনের সিদ্ধান্ত নেয়।একদিকে স্থায়ী চাকরী অন্যদিকে টাকা ফেরত। শর্তপূরন না হওয়া পর্যন্ত পলি অনশনে থাকবেন বলে জানিয়েছ্।ে একই সাথে তিনি প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে লিখিত আবেদন প্রেরণ করেছে।
হত্যা ,গুম, ও চাঁদাবাজির চলমান মামলার আসামী উল্লেখ করে পলি খাতুন জানান, মেয়র একজন ঠকবাজ, প্রতারক। পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম একজন ভূমি দস্যুও উল্লেখ করেন পলি খাতুন। ৩ বছর আগে আমাকে পৌর সভায় ‘সহকারী কর আদায়কারী ’ পদে চাকরী দেয়ার নামে দফায় দফায় মেয়র আমার নিকট থেকে নগদ ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা নিয়েছে। পরবর্তীতে হত্যা মামলায় মেয়র জেলহাজতে থাকাকালীন সময়ে তার স্ত্রী শাহানা খাতুনের ইসলামী ব্যাংক হিসাব নম্বরে বিভিন্ন চেক মারফত ৮ লাখ ১০ হাজার মোট ১৫ লাখ টাকা প্রদান করা হয়েছে।এখন সে সম্পূর্ণ অস্বীকার করছে।

আমার মত অনেককে চাকরি দেয়ার নামে নিঃস্ব করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পথে বসিয়েছেন।বার বার অনুনয় বিনয় করাতে আমাকে মাষ্টার রোলে পৌর সভায় কাজ করতে বলে। আমি দেড় বছর কাজ করলেও কোন বেতন ভাতা বা সম্মানীভাতা দেয়নি। সন্তান সম্ভবা পলি খাতুন আরও জানান,মেয়র আশরাফুল ইসলামের ভয়ে অনেকে তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে ভয় পায় এমনকি প্রাণনাশেরও হুমকি দিচ্ছে।

 


অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মেয়র আশরাফুল ইসলাম সরেজমিনে শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে উপস্থিত থেকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন,পলি খাতুনের দাবী সম্পূর্ণ মিথ্যা।আমার বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্র। আমি চাকরী দেয়ার নামে তার নিকট থেকে কোন টাকা পয়সা গ্রহন করি নাই। যদি সে প্রমান দিতে পারে তাহলে আমি ৩০ লাখ টাকা ফেরত দেবো। পলি খাতুনের স্বামী আমার ৫ কাঠা জমি ক্রয় করার জন্য ৬ লক্ষ টাকা দিয়েছে। বাদবাকী টাকা না দিতে পারায় জমি রেজিষ্ট্রী হয়নি। পলি খাতুন আমাকে কোন টাকা দেইনি। মাস্টার রোলে কাজের বিনিময়ে তার সম্মানীভাতা পরিশোধ করা হয়েছে॥ এসময় পৌর সভার ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিজানুর রহমান, হিসাব সহকারী সহ পৌর সভার একাধীক কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।
এনিয়ে মেয়রের স্ত্রী শাহানা ইসলাম শান্তনা টাকা নেয়ার বিষয়টি অকপটে স্বীকার বলে বলেন, আমার স্বামী কারাগারে থাকতে পলির বাবা ও স্বামী টাকা দিয়েছে। চাকরীর জন্য নাকি জমি ক্রয়ের জন্য তা আমি জানি না।
তবে এব্যাপারে জেলা প্রশাসক ড. মুনসুর আলম খান জানান, গাংনী পৌর সভার মেয়রের বিরুদ্ধে একটি মেয়ের শহীদ মিনারে অনশনের খবর পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষী প্রমাণিত হলে মেয়রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

You must be Logged in to post comment.

অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলায় সাতক্ষীরার আদালতে রিজেন্ট শাহেদ     |     সাতক্ষীরায় শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার মামলায় সাবেক এমপি হাবিবসহ ৩৪ আসামী হাজতে     |     রাণীশংকৈলে প্রতীক পেলেন প্রার্থীরা, জমে উঠলো নির্বাচন     |     টাঙ্গাইল-ধনবাড়ীতে আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মাসিক সভা অনুষ্ঠিত     |     করোনার টিকাদান কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী     |     টাঙ্গাইলে চা দোকানিকে ২৫ লাখ টাকার দোকান দিলেন কাদের সিদ্দিকী     |     রপ্তানি ও শিল্পে ব্যবহার যোগ্য আলুর উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে -নীলফামারীতে কৃষিমন্ত্রী     |     টাঙ্গাইলে কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ     |     ঝিনাইদহে বাল্যবিবাহ ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত     |     ঝিনাইদহে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ট্রাফিক সচেতনতামুলক কর্মসূচি অনুষ্ঠিত     |