ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০শে অক্টোবর ২০২০ ইং | ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

গাংনীর বামন্দী কৃষি ব্যাংক এখন দালালদের আখড়া ভূঁয়া গ্রাহকদের ঋণ প্রদানে বামন্দী কৃষি ব্যাংক এগিয়ে। এক বছরে ঋণ প্রদান ২৬ কোটি টাকা

আমিরুল ইসলাম অল্ডামন মেহেরপুর প্রতিনিধি : মেহেরপুরের গাংনীতে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বামন্দী শাখা এখন দালালদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে। নানা সূত্রে জানা গেছে, ভূঁয়া গ্রাহকদের ঋণ প্রদানে বামন্দী কৃষি ব্যাংক বর্তমানে এড়িয়ে রয়েছে।নতুন ভাবে শাখা স্থাপনের বয়স ১ বছর হলেও ইতোমধ্যে ঋণ প্রদান করা হয়েছে প্রায় ২৬ কোটি টাকা। অন্যদিকে প্রায ৪০ বছর আগে ব্যাংকের শাখা স্থাপন করা হলেও বর্তমানে সর্বসাকুল্যে ঋণ বিতরণের পরিমাণ ১৯ কোটি টাকা। এসব হিসাব নিকাশ মিলাতে বেরিয়ে এসেছে নানা জাল জালিয়াতির তথ্য।
বামন্দী এলাকার বিভিন্ন গ্রাহক সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক থেকে দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে খাদ্য উৎপাদন, সবজি, মৎস্য, পশু পালন ইত্যাদি উৎপাদনে সরকার সহজশর্তে সহজ সুদে কৃষকদের ঋণ দিয়ে থাকে।পাশাপাশি অন্যান্য ব্যাংকের মাধ্যমের এসব ক্ষেত্রে ঋণ দেয়া হয়ে থাকে। গ্রাহক বাছাই ও শনাক্তকরণে ব্যাপক দুর্নীতি চোখে পড়েছে। প্রকৃত অর্থে যেসব কৃষকদের ঋণ দেয়ার কথা তারা ব্যাংকের বারান্দায় ঘুরে ঘুরে দালাল ধরেও ঋণ পাচ্ছে না। অথচ ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের প্রভাব ও পরিচয় দিয়ে ভূঁয়া প্রকল্প দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা ঋণ উত্তোলন করে খেলাপী হচ্ছেন। সরেজমিনে ঘুরে জানা গেছে, যেসব গ্রাহক মৎস্য চাষের জন্য ঋণ নিয়েছেন তারা কেউ মৎস্য চাষ করেন না। আবার অনেকেউ গরু মোটাতাজাকরণ প্রকল্পে ঋণ নিয়েছেন তাদের কারো গরুর খামার নেই।
করমদী গ্রামের ভুক্তভোগী (কৃষি ব্যাংকের গ্রাহক)একজন জানান, আমি ৩০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহন করলেও কাগজে কলমে ৪০ হাজার টাকা দেখানো হয়েছে। আমি সুদে মূলে সমুদয় টাকা পরিশোধ করলেও আমার জমাকৃত মূল দলিল ফেরত না দিয়ে হয়রানি করছে। দালাল দিয়ে অফিসের ফাইলপত্র নাড়াচাড়া করা হয় বলে কাগজপত্র হারিয়ে যায়। ব্যাংক স্টাফদের যোগসাজশে দালালরাই সব কার্যক্রম ও ফাইল দেখাশোনা চালাতো। রামনগর গ্রামের ব্যাংক দালাল নজিমউদ্দীন ঋণ করে দেয়ার শর্তে অর্ধ শতাধিক লোকজনের নিকট থেকে টাকা পয়সা নিয়ে ঋণ দিতে ব্যর্থ হয়ে টাকা আত্মসাৎ করেছে। তবে নতুন শাখা ব্যবস্থাপক নিয়োগ দেয়ার পর কিছুটা অনিয়ম দুর্নীতি কমেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনতা ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা জানান,আমাদের ব্যাংক স্টাফদের ঋণসহ ১৯ কোটি টাকা ৪০ বছরেও প্রকৃত গ্রাহক খুঁজে পাইনি। অথচ এক বছর পূর্বে বামন্দীতে কৃষি ব্যাংকের শাখা খোলা হলেও বামন্দী, কাজীপুর তেঁতুলবাড়ীয়া ও মটমুড়া মাত্র ৪ টি ইউপিতে ঋণ প্রদান করা হয়েছে ২৬ কোটি টাকা।

You must be Logged in to post comment.

রাণীশংকলৈে শালবাগান রক্ষায় মানববন্ধন পালতি     |     মেহেরপুর জেলা বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশ     |     গাংনী সীমান্তে ২ লাখ টাকার ফেন্সিডিল ও ট্যাবলেট উদ্ধার     |     মেহেরপুরের গাংনীতে ভ্রাম্যমান আদালতে ইভটিজারের ৩ হাজার টাকা জরিমানা     |     আশাশুনির একটি মৎস্য ঘের থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার     |     রূপসায় নারী নির্যাতন প্রতিরোধে উঠান বৈঠক     |     সিভিল সার্জনের কথা উপেক্ষা করেই চলছে ঝিকরগাছার আয়সা ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার     |     ঝিকরগাছায় ৭৪৮টি গভীর নলকূপ বিতরণ করলেন এমপি ডা. নাসির উদ্দিন     |     সাতক্ষীরায় ব্যাংকের সিল ও বিআরটিএ’র নকল রশিদসহ দালাল চক্রের ৩ সদস্য আটক     |     আশাশুনির একটি মৎস্য ঘের থেকে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার     |