ঢাকা, শুক্রবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বগুড়ার শেরপুরে ভেঙ্গে যাওয়া ঘর পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রায়ন প্রকল্পের পিডি

বাদশা আলম শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি: বর্ষা মৌসুমের টানা দুদিনের বৃষ্টিতে সম্প্রতি বগুড়ার শেরপুর উপজেলার খানপুরে ভেঙে পড়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের দুর্যোগসহনীয় ঘর। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া প্রকল্পের ঘরগুলো নির্মাণকাজে অসংগতি ও অনিয়মের অভিযোগে সংশ্লিষ্ট তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ওএসডিসহ ঘটনার তদন্তে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় নড়েচড়ে বসেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা। এ প্রেক্ষিতে ১০ জুলাই শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ভেঙ্গে যাওয়া ঘরগুলো পরিদর্শনসহ তদন্তে আসেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর পিডি(প্রজেক্ট ডাইরেক্টর) অতিরিক্ত সচিব মো. মাহবুব হোসেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের জানায়, আমরা প্রথমে ভেবেছিলাম অবহেলার কারণে প্রকল্পের ঘরগুলো ভেঙ্গে পড়েছে। আসলে তা নয়। কয়েকদিনে টানা বর্ষনের কারণে ঘরের আর সিসি পিলারের নিচে থেকে মাটি ধসে যাওয়ায় ২২ টি ঘরের মধ্যে ৭ টি ঘরের টয়লেট ও রান্নাঘর ধসে গিয়েছে। জায়গা নির্ধারণে ভুল ছিল। এখন মেরামত কাজ চলছে। যাতে অতিবৃষ্টিতে আর মাটি ধসে যেতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে। আশা করি খুব দ্রুত এই ঘরের মালিকরা শংকামুক্ত জীবন যাপন করতে পারবেন।
পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, বগুড়া জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক, আশ্রয়ন প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী ইসতিয়াক নাসির, মনিটরিং অফিসার মো. নাসির উদ্দিন, বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান, শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ময়নুল ইসলাম, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছা. সাবরিনা শারমিন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোছা. ছামসুন্নাহার শিউলীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এ ঘটনার তদন্তে এর আগে শুক্রবার (৯জুলাই) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার খানপুরে আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজে অসংগতি ও অনিয়মের প্রেক্ষিতে তদন্তে ভেঙ্গে যাওয়া ঘর পরিদর্শন করেছেন রাজশাহীর বিভাগীয় কমিশনার ড. হুমায়ুন কবীর।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্প আশ্রয়ণ-২ এর আওতায় অতিদরিদ্র ভূমিহীনদের জন্য সরকারিভাবে আধাপাকা বাড়ি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় খানপুর ইউনিয়নের খানপুর বুড়িগাড়ি নামক স্থানে করতোয়া খালের কিনারায় ৩৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে ২২টি আধাপাকা বাড়ি নির্মাণ করা হয়। একটি করে আধাপাকা বাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হয়। দুই কক্ষ, রান্নাঘর ও টয়লেটসহ প্রধানমন্ত্রীর উপহারের প্রত্যেকটি বাড়ি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা।
পরবর্তীতে সুফলভোগীদের হাতে এসব বাড়ির জমির দলিল ও বাড়ির চাবি হস্তান্তর করা হয়। কিন্তু এসব নতুন বাড়িতে ওঠার আগেই ঘটছে নানা বিপত্তি। বর্ষা মৌসুমের টানা দুদিনের বৃষ্টিতেই দুর্যোগসহনীয় সাতটি ঘর ভেঙে পড়েছে। আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজে অসংগতি ও অনিয়মের প্রেক্ষিতে তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিয়াকত আলী সেখকে ওএসডি(বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ন প্রকল্পে উপজেলার খানপুর ইউনিয়নে রঙিন টিনের ২২ টি ঘরের মধ্যে ৭ টি ঘরের মাটি ধসে গিয়ে নির্মানাধীন ঘরের একাংশ ভেঙ্গে যায়। তারপর থেকে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা প্রশাসনের তদরকিতে চলছে মেরামত কাজ স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছেন।

You must be Logged in to post comment.

ফুলবাড়ীতে ৯মাস থেকে উপবৃত্তির টাকা পায়নি প্রাথমিকের সাড়ে ১৭০০ শিক্ষার্থী।     |     ঝিনাইদহের মোবারকগঞ্জ চিনিকল রক্ষায় প্রশংসনীয় উদ্যোগ     |     গাইবান্ধা জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত     |     পলাশবাড়ীতে ফেনসিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার     |     গড়েয়ায় জমকালো আয়োজনে  টাইগার ক্লাব আয়োজিত ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন     |     ঝিনাইদহে বজ্রপাত প্রতিরোধে তালবীজ রোপণ     |     মাদারীপুরের কালকিনিতে মোটরসাইকেল চাঁপায় শিশু নিহত     |     রূপসায়  অপরাজিতা নারীর ক্ষমতায়ন বিষয়ক নাগরিক সচেতনতা সভা অনুষ্ঠিত     |     মেহেরপুরের গাংনীর বিএডিসি অফিস এখন দুর্নীতির আখড়া ভূ-গর্ভস্থ সেচ প্রকল্পের কাজ দায়সারাভাবে করার অভিযোগ     |     পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় ধান ক্ষেত থেকে নবজাতক উদ্ধার     |