ঢাকা, শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর ২০২০ ইং | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Breaking News

বীরগঞ্জে কাল্ব এর ম্যানেজার সহ৭ শিক্ষককের বিরুদ্ধে ১৭ লক্ষ টাকা দুর্নীতি প্রমানিত ফেরৎ অন্যথায় আইনী ব্যবস্থা

মো.নজরুল ইসলাম খান বুলু, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ॥ বীরগঞ্জে কাল্ব এর ম্যানেজার সহ ৭ শিক্ষককের বিরুদ্ধে ১৭ লক্ষ টাকা দুর্নীতি প্রমানিত হওয়ায় ফেরৎ অন্যথায় আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশ তদন্ত কমিটির। উপজেলা শিক্ষক কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেডের সাবেক ম্যানেজারের জোগসাজসে সাবেক কমিটি বিভিন্ন ভুয়া খাত দেখিয়ে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা সমব্যয় অফিসার কর্তৃক কয়েক দফায় তদন্ত শেষে চুড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে যার স্মারকনং-৪৭.৬১.২৭০০.০০০.২৭.০০৮.১৭, তারিখ ১১ফেব্রুয়ারী/১৮ ইং।অভিযুক্তদের বিপরিতে দুর্নীতির চিত্র-চৌধুরীহাট আত্রাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাবেক সভাপতি আবুল কালম আজাদ-২লক্ষ ৫৭হাজার ১২৯/-, গোলাপগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ জাবেদ আলী-২লক্ষ ৩৬হাজার ৬২৯/-, বলরামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক-২লক্ষ ৩৬হাজার ৬২৯/-, খামার খড়িকাদাম উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ শামসুল আলম-২লক্ষ ৩৬হাজার ৬২৯/-, ঘোড়াবান্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আমিনুর রহমান-২লক্ষ ৩৬হাজার ৬২৯/-, পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী টংক নাথ রায়-২লক্ষ ৩৬হাজার ৬২৯/-ও সাবেক কাল্ব ম্যানেজার মোঃ রেজাউল করিম-২লক্ষ ৩৫হাজার ২২৯/- আত্মসাত করেছে।তদন্ত প্রতিবেদনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে-গত ১৭ সেপ্টেম্বর/১৭ গণস্বাক্ষরিত অভিযোগ পত্রে বিগত তিন অর্থবছরের অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ থাকলেও ১১টি খাতের স্থলে তদন্ত কর্মকর্তা ১ অর্থ বছরের হিসেব ধরে ১১টি খাতের মধ্যে ৪টি খাত চিহ্নিত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ১৬ লক্ষ ৭৫ হাজার ৬ শত ৯৮ টাকা ১৬ পয়সা অর্থ আত্মসাতে প্রতিবেদন দিয়েছে। অভিযোগে প্রধান দুর্নীতির খাত ছিল ১৪ জন ভুয়া শিক্ষক সাজিয়ে তাদের নামের বিপরিতে ৬০ লক্ষ টাকা ভুয়া ঋণ উত্তোলন করে আত্মসাত, প্রথম অভিযোগটি শতভাগ প্রমাণ হলে ও দুর্নীতির কথা সাধারণ সদস্যরা জানতে পারলে চাপে পড়ে নিরুপায় হয়ে কিছু টাকা পরিশোধ দেখিয়েছে। কিন্তু তবুও অভিযোগ প্রমানীত হয় যে, খড়িকাদাম উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী সন্তানের ব্লাড ক্যান্সারের সাহায্য হিসাবে ৪১ হাজার টাকা রেজুলেশনে পাশ করা হয়। কিন্তু তাকে দেওয়া হয় মাত্র ১০ হাজার টাকা। নিরদ নামে শিক্ষকের বাড়ী পুড়ে যাওয়ার সাহায্য হিসাবে ২৭ হাজার টাকা অনুমোদন দেয়া হয় কিন্তু তাকে দেওয়া হয় ১২ হাজার টাকা।এছাড়াও বিগত অর্থ বছর ২০১৬-১৭ পর্যালোচনা করে দেখা যায় দুর্নীতিবাজরা ১ বছরে ১২টি শিক্ষা সফর দেখিয়ে ৮ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকা আত্মসাত করে। প্রতিটি ঈদ বোনাসে ৭০ হাজার টাকা, প্রতি মাসে ১টি মিটিংয়ের নিয়ম থাকলেও একাধিক মিটিং দেখিয়ে ৬০ হাজার ২শত টাকা উত্তোলন ও আত্মসাত করে মর্মে জেলা সমবায় অফিস তদন্তে উল্লেখ করেছে। দিনাজপুর জেলা ও উপজেলা সমবায় অফিসার জানান, দুর্নীতিবাজরা যথা সময়ে আত্মসাতকৃত অর্থ উপজেলা শিক্ষক কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেডে জমা না দিলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সমবায় আইন ২০১৪ বিধিতে উল্লেখ রয়েছে কোন ব্যক্তি অর্থ আত্মসাত করলে দিগুণ হারে টাকা ফেরত দিতে হবে অন্যথায় ৭ বছরের কারাদন্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

You must be Logged in to post comment.

আটোয়ারীতে স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্ম বিরতি     |     পঞ্চগড়ে পাট চাষে উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত     |     পার্বতীপুর হবে দেশের প্রথম ডিজিটাল রেলওয়ে পে- অফিস – অর্থ উপদেষ্টা ও প্রধান হিসাব কর্মকর্তা     |     পার্বতীপুরে মৃদু কুয়াশায় শীতের আগমনি বার্তা গরম কাপড়ের সন্ধানে এক শ্রেনীর মানুষ     |     পঞ্চগড় চেম্বারের সাবেক সভাপতির মারা গেছেন     |     গাংনীতে খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির আমন ধান ক্রয়ের লটারী ড্র সম্পন্ন     |     ঘাটাইলে দুই শিশু বলাৎকারের অভিযোগে দুই মাদ্রসা শিক্ষক আটক     |     নিয়োগবিধি সংশোধনসহ বেতন আপগ্রেডেশন দাবিতে পঞ্চগড়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু     |     কোভিট-১৯ পরিস্থিতিতে মোরেলগঞ্জে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেয়া হচ্ছে স্কুল ফিডিং বিস্কুট     |     রাণীশংকৈলে ১২০ পিস ইয়াবাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার     |