ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ই এপ্রিল ২০২১ ইং | ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সখীপুরে দুঃস্থ নন, তারপরেও খাসজমি বরাদ্দ ! বন্দোবস্ত বাতিল চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে গ্রামবাসীর অভিযোগ

আঃ রশিদ তালুকদার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুরে ভূমি কার্যালয়ের অফিস সহকারী সাজেদুল ইসলাম প্রভাব খাটিয়ে তাঁর মাকে দুঃস্থ বানিয়ে ৫৩ শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত নিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১৮ জানুয়ারি উপজেলার বেতুয়া গ্রামের ২০জন নারী পুরুষ ওই বন্দোবস্ত বাতিলের দাবি জানিয়ে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন। অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার বেতুয়া মৌজায় বেতুয়া গ্রামের বড়কুড়ি এলাকায় ১ নম্বর খতিয়ানভূক্ত ৪০৮০ নম্বর দাগে ৫৩ শতাংশ জমি ওই গ্রামের ২০জন ব্যক্তি বীজতলা হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন। তাঁরা বংশ পরম্পরায় প্রায় ১০০ বছর ধরে ওই জমি ভোগদখল করে আসছেন বলে অভিযোগে দাবি করেছেন। প্রায় বছর খানেক আগে জমিটি ওই গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক মৃত ডা. জোয়াহেরুল ইসলামের ছেলে সখীপুর ভূমি কার্যালয়ের অফিস সহকারী সাজেদুল ইসলাম প্রভাব খাটিয়ে তাঁর মায়ের নামে বরাদ্দ নেন। ধনী মানুষ হওয়ার পরও তাঁর মাকে দুঃস্থ বানিয়ে ওই বরাদ্দ নিয়েছেন বলে গ্রামবাসী অভিযোগ করেন। বেতুয়া গ্রামের আজাহার আলী বলেন, ১০০ বছর ধরে আমরা ২০-২২টি পরিবার ওই জমিতে বীজতলা হিসেবে ব্যবহার করে আসছি। বর্ষাকালে ওই জমির ওপর দিয়ে নৌকা চলে। হঠাৎ করে খবর পেলাম ওই জমি সাজেদুল ইসলাম দখল নেওয়ার জন্য পাঁয়তারা করছে। তিনি আরও বলেন, সখীপুর ভূমি কার্যালয়ের অফিস সহকারী সাজেদুলের বাবা মৃত ডা. জোয়াহেরুল ইসলাম ধনী মানুষ ছিলেন। সখীপুর উপজেলা শহরে দুটি দামি জমি ছিল। ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ছিলেন। চেয়ারম্যান পদেও নির্বাচন করেছিলেন। সেনাবাহিনীতে চাকরি করেছেন। তাঁর এক ছেলে সেনাবাহিনী চাকরি থেকে অবসরে গেছেন। আরেক ছেলে রেজাউল ঢাকায় একটি কোম্পানীতে চাকরি করেন। ছোট ছেলে সাজেদুল প্রায় এক যুগ ধরে ভূমি অফিসে চাকরি করছেন। এরপরেও তাঁদের পরিবার দুঃস্থ হলে আমরা তাদের চেয়ে বেশি দুঃস্থ। ওই গ্রামের আকবর আলী বলেন, সাজেদুলের বাবা বৃদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। তাঁর মা সাজু বেগমের বয়স ৭০ বছরের উপরে। তাঁর মা বৃদ্ধ বয়সে ওই জমি দিয়ে কী করবেন। ওই জমিতে তো কোনো ফসল হয় না। বছরের ছয় মাস পানিতে ডুবে থাকে। শুধু বোরো চাষে বীজতলা হিসেবে ওই জমি ব্যবহার ছাড়া কোনো উপায় নেই। ওই জমিতে বাড়ি-ঘর করারও কোনো সুযোগ নেই। প্রকৃতপক্ষে সাজেদুল নিজেই ওই জমি ভোগ দখল করার উদ্দেশ্যে তাঁর বৃদ্ধ মায়ের নাম ব্যবহার করেছেন। উপজেলা ভূমি কার্যালয়ের অফিস সহকারী সাজেদুল ইসলাম তাঁর বিরুদ্ধে আনীত সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা। আমার মা দুঃস্থ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্য হিসেবে খাসজমি বন্দ্যোবস্ত পেয়েছেন। এখানে আমি কোনো প্রভাব খাটাইনি। আমার মা আইনগতভাবেই ওই জমি বরাদ্দ পেয়েছেন।

You must be Logged in to post comment.

গাইবান্ধায় ভুয়া জামিননামা তৈরির করায় কারারক্ষী গ্রেফতার     |     করোনার উপসর্গে সাতক্ষীরা মেডিকেলে এক বৃদ্ধের মৃত্যু     |     দেশে করোনায় মৃত্যু ১০১ নতুন শনাক্ত ৪ হাজার ৪১৭ জন     |     মাদারীপুরে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্যেও মৃত্যু     |     সোহানুর রহমান ভাইয়ের মায়ের মৃত্যুতে জাতীয় মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম গভীর শোকাহত     |     রাণীশংকৈলে  লকডাউনের ৩য় দিনে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা     |     গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ১০ টাকা কেজির সরকারি চাল উদ্ধার ব্যবসায়ী আটক     |     রাণীশংকৈলে লকডাউনে দোকান খোলা রাখার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা     |     শ্যামনগরে বাড়ি ও মন্দিরে হামলার ঘটনায় থানায় মামলা, গ্রেপ্তার-১     |     বীরগঞ্জে মাদকাসক্ত ছেলেকে ধরিয়ে দিলেন বাবা-মা     |