ঢাকা, রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এলেঙ্গা-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প-১ মাটি ভরাটে মসজিদ-মন্দিরের বালু ব্যবহারের অভিযোগ

আ:রশিদ তালুকদার,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:বঙ্গবন্ধু সেতু-ঢাকা মহাসড়কে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত ১৩.৬ কিলোমিটার এলাকা চার লেনে উন্নীতকরণের কাজে স্থানীয় মসজিদ-মন্দিরের উত্তোলিত বালু ব্যবহারের অভিযোগ ওঠেছে। মহাসড়ক উন্নয়নের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আব্দুল মোনেম লিমিটেডের নিযুক্ত সাব ঠিকাদাররা ওই বালু সরবরাহ করছেন।
কালিহাতী উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মসজিদ-মন্দিরের উন্নয়নে নিউ ধলেশ্বরী নদী তীরের নিজস্ব ভূমি থেকে উত্তোলিত বালু নিলামে বিক্রি করতে দরপত্র আহ্বান করায় পৌলী এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের কাছে ওই অভিযোগ করা হয়েছে। স্থানীয় বালু ব্যবসায়ীরা ওই বালু দরপত্রের মাধ্যমে কিনে মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের ঠিকাদারের কাছে বিক্রি করছে।
অভিযোগে প্রকাশ, কালিহাতী উপজেলা ড্রেজিং ও ড্রেজড ম্যাটারিয়াল ব্যবস্থাপনা কমিটি নিউ ধলেশ্বরী নদীর ডান ও বাম তীরে বেনুকুশা, গোহালিয়াবাড়ী, বেরীপটল, দুর্গাপুর, জোকারচর, কামাক্ষা, সল্লা, এলেঙ্গা পৌরসভা, পুংলী, ফটিকজানী, হিন্নাইপাড়া, মহেলা, ভুক্তা, সহদেবপুর, বড়রিয়া, ঘারিন্দা, খলদবাড়ী ও গালা এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নদী খননের মাধ্যমে উত্তোলন করা স্তুপকৃত বালু(ড্রেজড ম্যাটারিয়াল) বিক্রির জন্য গত ২ নভেম্বর দরপত্র(স্মারক নং-০৫.৩০.৯৩৪৭.০০০.২০.০৮২.২০২২-৯৮৪) আহ্বান করে। দরপত্রে ১৭টি লটে তিন কোটি ৮৭ হাজার ৯৯৮ দশমিক ৬২০ ঘণফুট বালু বিক্রির কথা বলা হয়। কিন্তু ৯ নম্বর ক্রমিকের ১১ নম্বর লটের ১১ লাখ ২৮ হাজার ৯৬০ ঘণফুট বালু স্থানীয় কালিমন্দির, নাট মন্দির ও মসজিদের উন্নয়নের জন্য স্ব স্ব নিজ ভূমি(নিউ ধলেশ্বরীর তীর) থেকে উত্তোলন করে স্তুপ করে রাখা হয়। অভিযোগে বলা হয়, স্থানীয় প্রভাবশালী বালু ব্যবসায়ীরা মন্দির ও মসজিদ কমিটির অগোচরে পরিমাপকারী দলের সদস্যদের প্রভাবিত করে তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে। ড্রেজড ম্যাটারিয়াল নিলামের খবর পেয়ে মসজিদ ও মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে বিষয়টির সুরাহা করার জন্য কালিহাতী উপজেলা ড্রেজিং ও ড্রেজড ম্যাটারিয়াল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে গত ২০ অক্টোবর আবেদন করা হয়। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ২৩ অক্টোবরের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারকে নির্দেশ দেন।
কালিহাতী উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার মো. মজিবর রহমান সরেজমিন তদন্ত করে গত ৩১ অক্টোবর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে ধলেশ্বরী নদীর বাম তীরে এলেঙ্গা পৌর ভূমি অফিসের আওতাধীন ঘোষপাড়া এলাকার মসজিদ ও মন্দির কর্তৃক উত্তোলিত বালু স্তুপ করে রাখা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়, যা মসজিদ ও মন্দিরের উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে বলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও স্থানীয় কাউন্সিলর এ বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতার অনুরোধ করেন। কিন্তু কালিহাতী উপজেলা ড্রেজিং ও ড্রেজড ম্যাটারিয়াল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার সার্ভেয়ারের প্রতিবেদনকে পাশ কাটিয়ে উন্মুক্ত দরপত্র বিজ্ঞপ্তি আহ্বান করেন।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আব্দুল মোনেম লিমিটেডের নিযুক্ত সাব ঠিকাদার স্থানীয় বেল্লা মোল্লা, মেসার্স অন্তু এণ্টারপ্রাইজ ও মো. খালেদ হোসেন খোকন সহ কয়েক ব্যক্তি রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় প্রতি ঘণফুট ৪.০৩(চার টাকা তিন পয়সা) টাকা দরে ওই কিনতে ওই দরপত্রে অংশ নিয়েছেন।
এলেঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও মন্দির কমিটির সভাপতি সুকুমার ঘোষ জানান, বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার(নিউ ধলেশ্বরী-পুংলী-বংশাই-তুরাগ-বুড়িগঙ্গা রিভার সিস্টেম) প্রকল্পের নদী খননের অজুহাতে কয়েক বছর ধরে স্থানীয় বালুখেকোরা অবৈধভাবে নিউ ধলেশ্বরী নদীর ঘোষপাড়া অংশ থেকে বাংলা ড্রেজার ও ভেকু দিয়ে বালু উত্তোলন করছে। বালু ব্যবসায়ীদের পরিবহণের গাড়ির ধাক্কায় ঘোষপাড়া সার্বজনীন কালিমন্দিরের কিছু অংশ ভেঙ্গে যাওয়ায় তাদের সাথে মন্দির কমিটির লোকদের বিরোধ সৃষ্টি হয়।
তিনি আরও জানান, বিরোধের কারণে বালু ব্যবসায়ীরা মসজিদ ও মন্দিরের উন্নয়নে নিজস্ব ভূমি থেকে উত্তোলন করা বালু সরকারি কর্মচারীদের সাথে আতাত করে নিলামের আওতায় ফেলেছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।
স্থানীয় মসজিদ কমিটির সদস্য লাবলু মন্ডল বাবলু জানান, মসজিদ ও মন্দিরের জায়গা পাশাপাশি হওয়ায় তারা সম্মিলিতভাবে কমিটির অর্থায়নে নিজেদের ভূমি থেকে বালু উত্তোলন করেন। তারা মসজিদ ও মন্দিরের অংশে কিছু মাটি ভরাটের কাজ করেছেন। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে কাজ সাময়িক বন্ধ রাখা হয়। এরমধ্যে কতিপয় ব্যক্তিরা স্বার্থ হাসিল করতে উত্তোলনকৃত ওই বালু সরকারি নিলামে তালিকাভুক্ত করেছে।
কালিহাতী উপজেলা ড্রেজিং ও ড্রেজড ম্যাটারিয়াল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাজমুল হুসেইন এ বিষয়ে মন্তব্য না করে জানান, এখন বালু নিলাম হয়ে গেছে। এ বিষয়ে নিলাম হওয়ার আগে যোগাযোগ করলে হয়তো কিছু করা সম্ভব হত।
টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজ্জাদ হোসেন জানান, তিনি কিছুদিন আগে এখানে যোগদান করেছেন, তাই এ বিষয়ে কিছু জানেন না। কয়েক বছর আগে বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার(নিউ ধলেশ্বরী-পুংলী-বংশাই-তুরাগ-বুড়িগঙ্গা রিভার সিস্টেম) প্রকল্পের আওতায় নিউ ধলেশ্বরী নদী খনন করা হয়েছে। খননকৃত বালু নদীর দু’তীরে স্তুপ করে রাখা ছিল। পরে তা পরিমাপ করে জেলা ড্রেজিং ও ড্রেজড ম্যাটারিয়াল ব্যবস্থাপনা কমিটির কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মো. আমিনুল ইসলাম জানান, অনিয়মের বিষয়ে কাউকে ছাড় দেওয়ার কোন সুযোগ নেই। অনিয়মের সাথে যারা জড়িত তাদের বিষয়ে জেলা প্রশাসন সব সময় কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ওই এলাকাটা যেহেতু কালিহাতী উপজেলার অংশ তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

You must be Logged in to post comment.

লালমনিরহাটে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মাদ্রাসা ছাত্র নিহত     |     ২৪শ পিছ ট্যাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার     |     গাংনীতে অবৈধভাবে নদীর মাটি কেটে বিক্রি। প্রশাসনকে অবহিত করার পরও নেয়া হয়নি ব্যবস্থা     |     পার্বতীপুরে ট্রেন লাইনচ্যুতির  ৯ ঘন্টা পর উত্তরবঙ্গে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক      |     রংপুর বিভাগীয় প্রাক-বাজেট আলোচনা সভা অনু‌ষ্ঠিত     |     মেহেরপুরে মাদকসহ পাঁচারকারি গ্রেফতার : র‌্যাবের ব্রিফিং     |     জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠিত হলো  ঢাকায় অবস্থিত ফুলবাড়ীবাসির মিলনমেলা      |     ঝিকরগাছা থানার দু’এএসআইসহ এক কনস্টেবলের বিদায় সংবর্ধনা     |     ঝিকরগাছায় পেন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কিশোরীদের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত     |     স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে চাই: এমপি শিমুল     |