ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গাংনীর কাজীপুর গ্রামে আদালতে বিচারাধীন জমি দখলে নিতে ভিখারিনীর বাড়ি ঘর ভাংচুর করে উচ্ছেদ করার অভিযোগ

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধি : গাংনীর কাজীপুর গ্রামের পোষ্ট অফিস পাড়ায় আদালতের বিচারাধীন মামলা নিষ্পত্তি না হলেও আইন অমান্য করে জমি দখল নিতে বাড়ি ঘর ভাংচুর করে উচ্ছেদের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান আমল থেকে বসবাসকারী একটি হত দরিদ্র পরিবারের সদস্যরা উচ্ছেদ আতংকে বসবাস করছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কাজীপুর গ্রামের আবুল হোসেনের স্ত্রী রঙ্গিলা খাতুন (৫৮)দীর্ঘ ৭৫ বছর যাবত কাজীপুর গ্রামের পোষ্ট অফিস পাড়ায় বসবাস করে আসছে। সরকারী খাস জমি হিসেবে তারা বসবাস করে আসছিল।এত বছর পর প্রতিবেশী মৃত দবিরউদ্দীন মেম্বরের ছেলে ভিদা হাসান (শিক্ষক) তার লোকজনদের সহায়তায় বৈধ কাগজ পত্রে জমির মালিকানা দাবি করে জোরপূর্বক বাড়ি ঘর ভাংচুর করে এমনকি রঙ্গিলার বাবার কবর পর্যন্ত উচ্ছেদ করে দখলে নিয়েছে। তার সাথে সাথে তার কাঁটার বেড়া দিয়ে ভিখারিনী রঙ্গিলা খাতুনের বাড়ির ঢোকার পথ আটকিয়ে দিয়েছে। মহল্লা ও গ্রামের একাধিক লোকজন জানায়, রঙ্গিলা খাতুন একজন ভিখারিনী অসহায় মহিলা । দীর্ঘদিন যাবত তারা বসবাস করে আসছে। তার বাবার কবরও ঐ জমিতে রয়েছে। সরকার যখন ভুমিহীন অসহায়দের বাড়ি করে দিচ্ছেন তখন তাদের বাড়িঘর ভেঙ্গে জোরপুর্বক উচ্ছেদ করার পায়তারা চালানো হচ্ছে।
রঙ্গিলা খাতুন জানান, আমি একজন গরীব মানুষ। ভিক্ষাবৃত্তি করে আমার সংসার চলে। বাড়ি ঘর ভাংচুর করে সম্পত্তি জবরদখল করায় আমার পথ বন্ধ হয়ে গেছে। এ নিয়ে আমি মোকাম গাংনী সহকারী জজ আদালতে দেং- ১৪৫ ধারায় মামলা বিচারাধীন রয়েছে। রঙ্গিলা খাতুনের কোন কাগজ পত্র না থাকলেও ৫২৩৯ দাগের রেকর্ড থেকে জানা গেছে, একই গ্রামের রাহাতুল্লাহ নামের একজন মালিকের নামে ৩ দাগে ৩১ শতক জমির মধ্যে রঙ্গিলা খাতুনের মা মনজিরা খাতুনের নামে ২০ শতক জমি রেকর্ড রয়েছে।
এব্যাপারে অভিযুক্ত ভিদা হাসান জানান, বৈধ কাগজ পত্র নিয়ে দলিল মোতাবেক আমি জমি দখল নিয়েছি।জমি নিয়ে আদালতে মিথ্যা মামলা চলমান । আমার সমুদয় কাগজ পত্র রয়েছে। আমি একাধিকবার মামলায় জয়লাভ করেছি।আমার বাবার নামে রেকর্ড রয়েছে । কাজীপুর মৌজার নালিশী জমি খতিয়ান নং-২৩৬৭ এর দাগ নং-৫২৩৮ জমির পরিমাণ ৪ শতক এবং ১৮১২ খতিয়ানের ৫২৩৮ দাগের ২ শতক জমি মোট ৬ শতক জমির আমরা বৈধ মালিক। আমার প্রতিপক্ষ রঙ্গিলা খাতুন যে জমি নিয়ে মামলা করেছেন সেই জমির দাগনং ৫২৩৯ । বিষয়টি নিয়ে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানসহ পরিষদের সকল মেম্বরবৃন্দ ও গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সালিশ করে আমাদের জমির ফয়সালা করে দিয়েছেন। অতএব আমার সাথে বাদীর কোন অভিযোগ চলে না। মিথ্যা মামলা করে আমাদের সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করছে।

You must be Logged in to post comment.

রংপুরে বসতভিটা ও আবাদী জমি থেকে উচ্ছেদ পাঁয়তারা বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ     |     মেহেরপুরে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার     |     আটোয়ারীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত     |     গাংনীতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত     |     বোদায় জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা     |     গাংনীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা     |     মেহেরপুরে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত     |     মাদারীপুরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মদ্য পানের ভিডিও ভাইরাল, দুই শিক্ষক বরখাস্ত     |     টাঙ্গাইলে লাঠিয়াল বাহিনীর ভয়ে নিরাপত্তা হীনতায় পাঁচটিকড়ির কয়েকটি পরিবার     |     ছয় বছর ধরে শিকলবন্দী মিলনের জীবন, নিরুপায় পরিবার     |