ঢাকা, বুধবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২৪ ইং | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাঙ্গাইল-মর্জিাপুরে নদী ভাঙন রোধে লবন চনিি দুধ কলা নক্ষিপে!

আ:রশিদ তালুকদার,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: যমুনায় অসময়ে ফরে পানি বাড়ার সাথে সাথে টাঙ্গাইলরে অভ্যন্তরীণ নদীগুলোরও পানি বাড়ছ।ে ফলে টাঙ্গাইলরে বংশাই ও ঝনিাই নদীর তীররে মর্জিাপুর উপজলোর ফতপেুর ইউনয়িনরে কয়কেটি গ্রামরে ঘরবাড়সিহ ও কয়কেশ একর আবাদি জমি নদীর্গভে চলে গছে।ে
মর্জিাপুর উপজলো সদররে সঙ্গে উত্তর মর্জিাপুররে যোগাযোগ রক্ষাকারী র্কুণী-ফতপেুর সড়কটি ইতোমধ্যে ভাঙনরে কবলে পড়ছে।ে ভাঙন রোধে হন্দিু সম্প্রদায়রে লোকজন তাৎক্ষণকিভাবে লবন, চনি,ি দুধ, কলা ইত্যাদি ভোগ হসিবেে নদীতে নক্ষিপে করে গঙ্গা মায়রে করুণা র্প্রাথণা করছনে।

সরজেমনিে স্থানীয়রা জানায়, প্রকৃততিে সকালরে কুয়াশা শীতরে আগমনী জানান দচ্ছি।ে এ সময় বংশাই ও ঝনিাই নদীর পানি বাড়ছ-ে এটা তারা আগে কখনও দখেনে ন।ি বংশাই ও ঝনিাই মর্জিাপুর উপজলো দয়িে বয়ে যাওয়া দুটি নদী পাশাপাশি এলাকা দয়িে গয়িে ধলশ্বেরীর সঙ্গে ত্র-িসঙ্গমে মলিতি হয়ছে।ে
দুই সপ্তাহ ধরে পানি বাড়ার সঙ্গে পাল্লা দয়িে বংশাই ও ঝনিাই নদীর ভাঙনও বাড়ছ।ে ফতপেুর ইউনয়িনরে থলপাড়া, ফতপেুর, বানকাটা, চাকলশ্বের, বলৈানপুর, পাতলিাপাড়া ও ভাতগ্রাম ইউনয়িনরে গোড়াইলরে নদী তীরর্বতী এলাকায় ভাঙন শুরু হয়ছে।ে গত তনি দনিরে ভাঙনে এরই মধ্যে সড়ক, ঘরবাড়ি ও আবাদি জমি নদী র্গভে চলে গছে।ে
বানকাটা ও গোড়াইল গ্রামরে দরদ্রি পরবিাররে অনকেইে বসত বাড়ি হারয়িে নঃিস্ব হয়ে পড়ছেনে। হলিড়া বাজাররে উত্তর পাশরে অধকিাংশ জায়গা এবং বাজাররে পাশে এলজইিডরি সড়ক-কালর্ভাট ভঙেে গছে।ে নদী তীরর্বতী এলাকার শ’ শ’ একর আবাদি জমি ইতোমধ্যে নদীতে বলিীন হয়ে গছে।ে এছাড়া মর্জিাপুর উপজলো সদররে সঙ্গে ফতপেুর ইউনয়িনরে যোগাযোগরে প্রধান মাধ্যম র্কুণী-ফতপেুর সড়করে ফতপেুর বাজাররে দক্ষণিপাশে নতুন করে ভাঙন শুরু হয়ছে।ে
ভাঙনে সড়করে বশেরিভাগ অংশ নদীর পটেে চলে গছে।ে ফতপেুর বাজাররে পালপাড়া গ্রামরে ১০-১২টি বাড়ি যে কোন সময় ভাঙনরে হুমকতিে রয়ছে।ে ফলে র্কুণী-ফতপেুর সড়ক দয়িে সব ধরনরে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গছে।ে

স্থানীয়রা জানায়, ফতপেুর ইউনয়িনরে ফতপেুর, বানকাটা, থলপাড়া, পারদঘিী, বলৈানপুর, সুতানরি ও মহড়ো ইউনয়িনরে তঘেুর,ি ভাতকুড়া, ছাওয়ালী গ্রামরে শ’ শ’ লোকজন ফতপেুর বাজার ঘাট থকেে ইঞ্জনি চালতি নৌকায় মর্জিাপুর সদরসহ বভিন্নি স্থানে চলাচল করত। এলাকাবাসীর দাবরি মুখে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধদিপ্তর (এলজইিড)ি গণমানুষরে র্দুভােগ লাঘবে প্রায় দড়ে যুগ আগে তনি কলিোমটিার দর্ঘ্যৈরে র্কুণী-ফতপেুর সড়ক পাকা কর।ে এরপর থকেে ওই সড়কে যানবাহন চলাচল করতে শুরু কর।ে স্থানীয়দরে র্দীঘদনিরে র্দুভােগরে লাঘব হয়।
অসময়ে নদীতে পানি বৃদ্ধরি ফলে সড়কটতিে ভাঙন দখো দওেয়ায় সব ধরণরে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গছে।ে থলপাড়া এলাকায় পাশরে জমরি ওপর দয়িে সীমতিভাবে শুধুমাত্র স্থানীয়দরে মোটরসাইকলে, সএিনজি চালতি অটোরকিশা, রকিশা ও ভ্যান চলাচল করতে পারলওে ফতপেুর বাজাররে পালপাড়া এলাকায় সড়করে পাশে ঘরবাড়ি থাকায় সে অবস্থাও নইে। অতদ্রিুত ভাঙন রোধ করা না গলেে সড়কটি নদীর পটেে চলে যাওয়ার আশঙ্কা এলাকাবাসীর।
গত ২-৩ দনিরে ভাঙনে ইতোমধ্যে ফতপেুর বাজাররে দক্ষণিপাশে সড়করে প্রায় তনিশ’ ফুট এবং থলপাড়া এলাকায় প্রায় ছয়শ’ ফুট নদীর্গভে চলে গছে।ে ভাঙনরে কবল থকেে সড়ক ও ঘর-বাড়ি রক্ষায় অনকেইে ভাঙনস্থলে গাছ ও বাঁশ ফলেে প্রতরিোধরে চষ্টো করছনে।
নদীতে ভাঙন যাতে না হয় সজেন্য স্থানীয় হন্দিু সম্প্রদায়রে লোকজন গঙ্গা মায়রে নামে ভোগ দচ্ছিনে। অনকেইে লবণ, চনি,ি দুধ, কলা, বাতাসা, মষ্টিসিহ হন্দিু শাস্ত্ররে নয়িমানুযায়ী যা যা দতিে হয় তার সব নদীতে নক্ষিপে করছনে।
ফতপেুর বাজাররে পালপাড়া এলাকার ১০-১২ নারী জানান, নদী ভাঙন রোধে তারা গঙ্গা মায়রে করুণা র্প্রাথণা করছনে। মায়রে কৃপা পলেে নদী ভাঙনরে কবল থকেে তারা রত্ষা পাবনে। এজন্য পুঁজা শষেে তারা গঙ্গা মায়রে নামে ভোগ দচ্ছিনে। গঙ্গার কাছে বাড়ঘির রক্ষার কামনা করে তারা অনকেইে লবণ, চনি,ি দুধ, কলা, বাতাসা, মষ্টিসিহ বভিন্নি দ্রব্য সামগ্রী নদীতে ছুঁড়ে দচ্ছিনে।

ফতপেুর উচ্চ বদ্যিালয়রে প্রধান শক্ষিক মো. ফরদি ময়িা জানান, র্কুণী-ফতপেুর সড়ক দয়িে থলপাড়া, বলৈানপুর, সুতানর,ি হলিড়া ও আদাবাড়ি গ্রামরে শক্ষর্িাথীরা বদ্যিালয়ে আসা-যাওয়া কর।ে সড়কটি রক্ষা করা না গলেে শক্ষর্িাথীসহ এলাকাবাসী চরম র্দুভােগে পড়ব।ে

ফতপেুর ইউনয়িন আওয়ামী লীগরে সাবকে সভাপতি আলতাফ হোসনে ও র্বতমান সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ জানান, এতদাঞ্চলরে শতবছররে ঐতহ্যি ফতপেুর হাট। এ হাটে আগে বংশাই ও ঝনিাই নদী দয়িে পাট ও নারকিলে র্ভতি নানা ডজিাইনরে বড় বড় নৌকা আসা-যাওয়া করত। এ ঐতহ্যিবাহী হাটরে একমাত্র সড়কটি নদী নদী ভাঙনরে কবল থকেে রক্ষায় তনিি পানি উন্নয়ন র্বোডরে জরুরি হস্তক্ষপে দাবি করনে।

ফতপেুর ইউপি চয়োরম্যান ও ইউনয়িন আওয়ামী লীগরে সভাপতি আব্দুর রউফ জানান, র্কুণী-ফতপেুর সড়ক দয়িে উত্তর মর্জিাপুর ও পাশরে বাসাইল উপজলোর হাজারো মানুষ চলাচল করে থাক।ে সড়কটি নদী ভাঙনরে হাত থকেে রক্ষায় তনিি র্কতৃপক্ষরে দ্রুত পদক্ষপে নওেয়ার জোর দাবি জানান।

টাঙ্গাইল এলজইিডরি নর্বিাহী প্রকৌশলী মো. রফকিুল ইসলাম জানান, নদী ভাঙনরে বষিয়টি মূলত বাপাউবোর। তারপরও তনিি স্থানীয় বাপাউবোর নর্বিাহী প্রকৌশলীর সঙ্হে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নওেয়ার অনুরোধ করবনে।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন র্বোডরে নর্বিাহী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসনে জানান, ইতোমধ্যে সংশ্লষ্টি এলাকার দায়ত্বিপ্রাপ্ত র্কমর্কতাকে নর্দিশেনা দওেয়া হয়ছে।ে ভাঙন রোধে দ্রুত র্কাযকরী পদক্ষপে নওেয়া হব।ে

You must be Logged in to post comment.

    |     ভূঞাপুরে স্ত্রী কর্তৃক স্বামীর পুরুষাঙ্গ কর্তন স্ত্রী গ্রেফতার     |     মুজিবনগর স্মৃতি কমপ্লেক্সকে আন্তর্জাতিক মানের করা হবে -আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি     |     মাদকের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার থাকতে হবে           —- রাণীশংকৈলে এমপি সুজন     |     রাণীশংকৈলে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত     |     ঝিকরগাছায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভা, চিত্র প্রদর্শনী ও দোয়া মাহফিল     |     ঝিকরগাছায় শব্দদূষণ বন্ধে অবস্থান কর্মসূচি ও ইউএনও’র নিকট স্মারকলিপি প্রদান     |     আটোয়ারীতে এমপি রেজিয়া ইসলাম এঁর মতবিনিময় সভা     |     গাংনীতে মুকুল সেবা সংস্থার উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত     |     উপজেলা নির্বাচনে মেহেরপুর সদরে ৫ জন ও মুজিবনগরে ৪ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন     |