ঢাকা, শুক্রবার, ২২শে অক্টোবর ২০২১ ইং | ৭ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ধোয়া-মোছার কাজ শেষ পুনরায় পাঠদানে প্রস্তুত শেরপুরের প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

বাদশা আলম, শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি:দীর্ঘ দেড় বছর ধরে মহামারি করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি অফিস, আদালত ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ বা লকডাউনে ছিল। দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকায় চেয়ার, টেবিল, বেঞ্চ, ব্লাকবোর্ডে পড়েছে ধুলার আস্তরন। গত ১১ আগস্ট থেকে সারাদেশে লকডাউন তুলে নেয়ার পর বন্ধই ছিল শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাইতো শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ও শিক্ষা পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভবনাকে চিন্তা করে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়ে ঘোষণা করেন সরকার। এরপর থেকে শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত করতে বগুড়ার শেরপুরের প্রায় ৩ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো পাঠ উপযোগী করতে সকল প্রস্ততি গ্রহন করেছে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষরা। ইতিমধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ধোয়া-মোছার কাজ দ্রুত শেষ করে পাঠদানের জন্য প্রস্তুত করে ফেলেছে। ৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকালের দিকে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গিয়ে এবং খোঁজ নিয়ে এসব তথ্য জানা গেছে।
উপজেলা শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা যায়, শেরপুর উপজেলায় উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী কলেজ রয়েছে ৬টি, টেকনিক্যাল কলেজ রয়েছে ৬টি, মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে ৪৯টি, দাখিল মাদ্রাসা রয়েছে ৪২টি, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ১৩৮টি, এছাড়া অর্ধশত কিন্ডারগার্ডেন স্কুল সহ প্রায় ৩শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে স্কুল খোলার প্রস্তুতি শেষ হয়েছে।
শেরপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ আল মাহমুদ কমল বলেন, আমরা কলেজে প্রবেশ পথে শিক্ষার্থীদের জন্য হাত ধোওয়ার জন্য সাবান ও হ্যান্ড সেনিটাইজারসহ পানির ট্যাপের ব্যবস্থা রেখেছি। কলেজের প্রতিটি কক্ষ এবং বাহিরের সকল জায়গা পরিষ্কার করা হয়েছে।
শেরপুর উপজেলা কিন্ডার গার্টেন এসোসিয়েশনের সভাপতি সামিট স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক সাইফুল ইসলাম লিপু জানান, সরকারি নিদের্শনা মোতাবেক আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ক্লাস শুরুর জন্য আমরা সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধোয়া-মোছা করে প্রস্তুত রেখেছি। স্কুলে প্রবেশসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রথম দিন থেকে ক্লাস শুরু করা হবে।
এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মিনা পারভীন জানান, উপজেলার প্রতিটি প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেনী কক্ষ, ক্যাম্পাস, পরিচ্ছন করতে নির্দেশনা ইতিমধ্যে বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বিদ্যালয়ে হ্যান্ড ওয়াস অথবা সাবান রাখার ব্যবস্থা সহ প্রাথমিক বিদ্যলয়গুলোর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করার শতভাগ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।
২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম কোভিড-১৯ সংক্রমণ ধরা পড়ে। তার ১০দিনের মাথায় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এরপর ১৭ মার্চ থেকে সারা দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। পরে (কোভিড-১৯)করোনার সংক্রমণ কমে আসায় চলতি বছরের মার্চে সরকারের পক্ষ থেকে একবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। এরপর সরকারের নিদের্শনা অনুযায়ী আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার ঘোষণার পাশাপাশি আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে মেডিকেল কলেজগুলো এবং আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে বিশ^বিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়ার ঘোষণা রয়েছে।

You must be Logged in to post comment.

বাংলাদেশ ভারতের চেয়েও অর্থনৈতিকভাবে অনেক এগিয়ে। মেহেরপুরে জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় বাহাউদ্দীন নাসিম     |     গাংনীতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরেপেক্ষ ভোট হলে স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহেল আহমেদ আবারও চেয়ারম্যান     |     গাংনীতে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেম্বর নির্বাচিত হলেন মটমুড়ার সাবেক মেম্বর মাঝহারুল     |     পলাশবাড়ীতে ট্রাক চাপায় নিহত হলো শিশু ইসমাঈল      |     ঝিকরগাছায় নির্বাচনের মনোনয়ন বাছাই : চেয়ারম্যান ও সাধারণ পদে ছিটেফোটা বাতিল     |     টানা বৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি নুয়ে পড়েছে ধান,আলু নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষক     |     ঠাকুরগাঁওয়ে   আচকা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় খোলা-বন্ধ প্রধান শিক্ষকের ‘ইচ্ছায়’     |     তেঁতুলিয়ার শালবাহানে নৌকার জয়ের প্রত্যাশা জননেতা আশরাফুলের     |     ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার  ঠাকুরগাঁওয়ে রয়েল বড়–য়াকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত সহ গ্রেফতার-৩      |     ব্লাক কিট বা ভুবন চিল     |