ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা- মেহেরপুরে নৌকার বিজয় মিছিলের সময় দু’প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে আহত-৩৫

আমিরুল ইসলাম অল্ডাম মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধি : মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামে আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকা মার্কার প্রার্থীর বিজয় মিছিলের সময় দু’প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্ততঃ ৩৫ নেতাকর্মী ও সমর্থক আহত হয়েছেন।
উভয়পক্ষের গুরুতর আহতরা হলেন-আনন্দবাস গ্রামের আকাশ মিয়া (২৫), টুকু বিশ্বাস (৪০) অপু বিশ্বাস (৩৩), অন্তর মল্লিক (১৬), আব্দুল হালিম (৩২)আশরাফুল ইসলাম (৪৫), ফেরদৌস আলী মেনতা (৫৫) আজমত আলী (৪৫) ফজলুল হক (৫৯), নাহিদুল ইসলাম (৩৫),পিয়াস মিয়া (২৫) ও আলী ইয়াসিন (৫০)।
সোমবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জিয়াউদ্দীন বিশ্বাসের আনন্দবাস গ্রামের বাড়ির সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের মুজিবনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমল্পেক্সে ও গুরুতর আহতদের মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মেহেরপুর-১ (মেহেরপুর সদর ও মুজিবনগর) সংসদীয় আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেনের বিজয় হওয়াতে আনন্দবাস গ্রামে তার কর্মী সমর্থকেরা আনন্দ মিছিল নিয়ে জিয়াউদ্দীন বিশ্বাসের বাড়ির সামনে জড়ো হয়ে সেøাগান দিতে থাকেন। এসময় তাদের সেখান থেকে সরে যাওয়ার অনুরোধ করে এলাকার মানুষ। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে জিয়াউদ্দীনের কর্মীরা লাঠি- সোটা নিয়ে তাদের উপর হামলা করেন । পরে উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের প্রায়-৩৫ জন কর্মী-সমর্থক আহত হয়। স্থানীয় লোকজন তাদেরকে দ্রæত উদ্ধার করে মুজিবনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। এসময় আকাশ মিয়া, টুকু বিশ্বাস, অপু বিশ্বাস, অন্তর মল্লিক,আব্দুল হালিম,আশরাফুল ইসলাম, ফেরদৌস আলী মেনতা মেম্বর, আজমত আলী, ফজলুল হক, নাহিদুল ইসলাম,পিয়াস মিয়া ও আলী ইয়াসিন এর শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিলে,তাদের মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকীরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উজ্জ্বল দত্ত জানান, সর্ব প্রথমে নৌকার আনন্দ মিছিল থেকে জিয়াউদ্দীন বিশ্বাসের একজন কর্মীকে চড় থাপ্পড় মারা হয়। পরে মিছিলটি জিয়াউদ্দীনের বাড়ির সামনে গিয়ে আরো জোরে শব্দ করে সেøাগান দিয়ে থাকে। এক পর্যায়ে জিয়াউদ্দীন বিশ্বাস বাড়ি থেকে বের হয়ে তার কর্মীকে চড় থাপ্পড় মারার কারণ জানতে চাই। এসময দুই পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে অনেক কর্মী সমর্থকেরা আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ এলাকা নিয়ন্ত্রণ নেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে পুলিশ ফাঁকা ৮ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে।

You must be Logged in to post comment.

মেহেরপুরে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার     |     আটোয়ারীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত     |     গাংনীতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত     |     বোদায় জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা     |     গাংনীতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা     |     মেহেরপুরে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত     |     মাদারীপুরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মদ্য পানের ভিডিও ভাইরাল, দুই শিক্ষক বরখাস্ত     |     টাঙ্গাইলে লাঠিয়াল বাহিনীর ভয়ে নিরাপত্তা হীনতায় পাঁচটিকড়ির কয়েকটি পরিবার     |     ছয় বছর ধরে শিকলবন্দী মিলনের জীবন, নিরুপায় পরিবার     |     পিতৃভুমিতে ফুলে ফুলে শিক্ত হলেন পুলিশ সুপার শফিক      |