ঢাকা, সোমবার, ৪ঠা মার্চ ২০২৪ ইং | ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছ রোপন করেন ও উপহার দেন জাহিদ

রবিউল এহ্সান রিপন, ঠাকুরগাঁও: পরিবেশ ভারসাম্য রক্ষায় ২৫ ভাগ বনভূমির প্রয়োজন। বনভূমি বিস্তারে দরকার বেশী করে বৃক্ষ রোপণ। কিন্তু যে হারে গাছ কেটে নিধন করা হয় সে হারে গাছ রোপন করা হয় না। সে জন্যে আমাদেরকে মুখোমুখি হতে হচ্ছে নানা দূর্যোগের। সবুজ বনায়ন ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার স্বার্থে দীর্ঘ দিন থেকে গাছ রোপন করছেন ও মানুষের কাছে ফ্রি তে গাছ বিতরণ করে আসছেন জাহিদ ইকবাল।

ঠাকুরগাঁও পৌরসভার আশ্রমপাড়া বাসিন্দা জাহিদ ইকবাল। পেশায় তিনি একজন আইনজীবী। রোববার থেকে বুধবার সারাদিনের কর্মব্যস্ততা কোর্ট চত্বরকে ঘিরে। তবে প্রতি বৃহস্পতিবার কোর্টের কাজ শেষ করে মানুষের হাতে গাছ উপহার হিসেবে তুলে দেন তিনি। আর শুক্রবার ও শনিবার বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে রোপণ করেন গাছ। আর সময় পেলেই পরিচর্যা করেন রোপণ কৃত গাছগুলো।

তবে এমনি গাছ উপহার পাওয়ার সুযোগ নেই। মানতে হবে কয়েকটি শর্ত। একটি গাছ উপহার নিলে সঙ্গে নিজ অর্থায়নে রোপণ করতে হবে আরো তিনটি গাছ। রোপণের পর নিতে হবে গাছের পরিচর্যা।

জানা গেছে, অ্যাডভোকেট জাহিদ ইকবাল ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, রংপুর কারমাইকেল কলেজ থেকে এইচএসসি, স্নাতক ও রংপুর আইন কলেজ থেকে এলএলবি পাস করেন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি ঠাকুরগাঁও জেলা জজ কোর্টে আইন পেশায় আছেন। আইনজীবী হলেও গাছের সঙ্গে রয়েছে তার সখ্যতা। গাছকে ভালোবাসেন তিনি। পরিবেশ রক্ষায় রোপনের পাশাপাশি বিতরণ করেন গাছ।

তার কাছ থেকে গাছ পাওয়া আরমান হোসেন বলেন, তিনি আমাকে দুটি গাছ উপহার দিয়েছেন। সে গাছগুলোর পরিচর্যা সম্পর্কে প্রায় তিনি খবর নেন। এরকম উদ্যোগ আমাদের পরিবেশকে সবুজে ভরপুর করবে বলে আমি মনে করছি।

বৃক্ষপ্রেমী অ্যাডভোকেট জাহিদ ইকবাল বলেন, বনভূমি কমে যাওয়ার জন্য আমরা প্রকৃতিকে দায়ী করি। কিন্তু প্রকৃতি যতটা না দায়ী তার চেয়ে বেশি দায়ী আমরা। নিজেদের প্রয়োজনে আমরা নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলছি। কৃষিজমি লাগবে, বাড়িঘর বানাতে হবে, আসবাবপত্র বানাতে হবে, খেলার মাঠ বানাতে হবে এজন্য আমরা সব গাছ কেটে ফেলছি। এ রকম করতে গিয়ে আমরা আমাদের উপকারের চেয়ে সর্বনাশ বেশি ডেকে আনছি। প্রয়োজনে আমরা গাছ কাটব। কিন্তু গাছ কাটার পর নতুন করে গাছ না লাগানোর কারণে কত প্রজাতির গাছ যে এখন ধ্বংসের মুখে তার কোনো খবর নেই। এ ছাড়াও গাছ পাখিদের আশ্রয়স্থল। গাছ উজাড় হওয়ায় নানা প্রজাতির পাখিও বিলুপ্ত হচ্ছে।

তিনি বলেন, মূলত মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে ও গাছ রোপণে উদ্ধুদ্ধ করার জন্য আমার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস। গাছ রোপণ আসলে অনেক সওয়াবের কাজ। একটি গাছ থেকে নানাভাবে মানুষ ও পশুপাখি উপকৃত হয়। আর যার মাধ্যমে উপকৃত হয় সে এর সওয়ার পায়। সেজন্য প্রতি বৃহস্পতিবার কোর্ট শেষ করে মানুষের মাঝে গাছ উপহার হিসেবে দিচ্ছি। এ ছাড়াও সবুজ বনায়নে কোর্ট চত্বর, রাস্তার ধার ও রেলস্টেশনে গাছ রোপন করেছি। এতে করে ভালো কাজের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করছি।

তার এমন কাজকে সাধুবাদ জানিয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, এটি আসলেই প্রশংসনীয় কাজ। আমরা এখন গাছ রোপন না করে নিধন করছি। তবে এবারের বর্ষায় আমরা উদ্যোগ নিয়েছি বেশী বেশী গাছ রোপনের। আর প্রতিটি শিক্ষার্থীকে এবারে সর্বনিম্ন একটি হলেও গাছ লাগানোর নির্দেশ দেব আমরা।

You must be Logged in to post comment.

রাধানগর হাজী সাহার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা     |     দেবর-ভাবির দ্বন্দ্বে জাপার দুর্গ বলে খ্যাত  রংপুরে নেতিবাচক প্রভাব      |     রংপু‌রের তারাগ‌ঞ্জে আলুর ক্ষেত তামা‌কের দখ‌লে      |     ঝিকরগাছায় কিশোর-কিশোরী ক্লাবের বার্ষিক ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ     |     আনন্দ উদ্দীপনার ঝিকরগাছা রিপোর্টার্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বনভোজন     |     গাংনীতে আদালতের রায় পাওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের রায় বাস্তবায়নের আবেদন করা হলেও হয়রানি করতে যাচাই-বাছাইয়ের নামে প্রহসন: মুক্তিযোদ্ধাদের বয়কট     |     জরাজীর্ণ ঘরে ঝুঁকি নিয়ে বসবাস, মেঘ দেখলেই দিশেহারা আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দারা     |     ঘাটাইলে আলহাজ্ব শামসুর রহমান খান শাহজাহান স্মৃতি শিক্ষা বৃত্তি ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত।      |     মেহেরপুরে জাতীয় ভোটার দিবস পালন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত     |     ঝিনাইদহে বিএনপি’র কারামুক্ত নেতাকর্মীদের সংবর্ধনা প্রদান     |