ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পরীক্ষার প্রক্রিয়া না মেনে, অবৈধ উপায়ে নেওয়া হলো সহকারী প্রধান শিক্ষক

পঞ্চগড় প্রতিনিধি : সরকারি নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, ডিজি প্রতিনিধি ও প্রধান শিক্ষক। নিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ে জানেনা পরীক্ষায় অংশ নেওয়া আবেদনকারী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা। দেবীগঞ্জ উপজেলার শালডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম শিকারপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অবৈধভাবে নিয়োগ প্রদান করা হয়।

সরেজমিনে খোজ নিয়ে জানা যায় যে, গত ১৯ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ওবায়দুর রহমানকে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রদান করা হয়। তবে নিয়োগ দেখানোর দিনে ছিল না কোন পরীক্ষার্থী কিংবা ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা। তবুও দেখানো হয় নিয়োগ পরীক্ষা বৈধ।

বে-সরকারি নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী নিজ প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার কথা থাকলেও মানা হয়নি সেই নিয়ম। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোপনে নিয়োগ প্রক্রিয়া করেন। এ ক্ষেত্রে পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পাদনের জন্য সহযোগীতা করেন পরীক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকতার্রা। কর্মকর্তাদের পরামর্শে ভ‚য়া নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়া হয়। নিজ বিদ্যালয়ে পরিক্ষার কার্যক্রম না করে পরীক্ষা নেওয়া হয় অন্য প্রতিষ্ঠান দেবীগঞ্জ সরকারী অলদিনী বালিকা বিদ্যালয়ে খোজ নিয়ে দেখা যায়, পরীক্ষার দিন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পরীক্ষায় অংশ নিতে আসা অন্যান্য প্রার্থীদের স্বাক্ষর গ্রহণ করে পরীক্ষা না নিয়ে দেবীগঞ্জ সরকারি অলদিনী বালিকা বিদ্যালয়ে নিয়ে যান। সেখানে সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পাদন করেন। তবে এক্ষেত্রে দেবীগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সলিমুল্লাহ ও ডিজি প্রতিনিধি দেবীগঞ্জ সরকারি অলদিনী বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) সহিদুল ইসলামকে ম্যানেজ করে পুরো অবৈধ নিয়োগটি বৈধ করা হয়।

ওবায়দুর রহমান সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগপত্র পাওয়ার পরেও তিনি অক্টোবর মাসে বেতন ভাতা উত্তোলণ করেন। অথচ তিনি ৩০ সেপ্টেম্বর সহকারী শিক্ষক হিসেবে অব্যাহতি পত্র দেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রশিদুল ইসলামের নিকট। সেই দিনেই তা মঞ্জুর করা হয়।
পরীক্ষায় অংশ নিতে আসা পরীক্ষার্থী চেংঠি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক নারায়ন জানান, আমার সকল কিছু ওবায়দুর করেন। পরীক্ষার দিন অলদিনী বিদ্যালয়ে যেতে বললে আমি সেখানে যাই। সেখানে আমার স্বাক্ষর নেওয়া হয়। চেংঠি হাজেরাডাঙ্গা শহিদ জননী বিদ্যালয়ের শিক্ষক তছিরুল ইসলাম জানান, আমাকে ১৯ সেপ্টেম্বর ওবায়দুর রহমান বিদ্যালয়ে আসতে বলে। সেখানে গেলে আমাকে অলদিনীতে নিয়ে আশা হয়। তবে স্কুলের কাগজপত্র ঠিক করা হয়। আরেক প্রার্থী জিয়াউল হকের সাথে তাঁর প্রতিষ্ঠান ও সেল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার ফোন বা সাক্ষাৎ পাওয়া যায় নি।

ম্যানেজিং কমিটির সদস্য হরিপদ রায় ও সুবাশ চন্দ্র জানান, সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিষয়ে আমরা কিছু জানি না। তবে পিয়ন বাসায় এসে পূর্বে নিয়োগের মিটিং এর কথা বলে আমাদের স্বাক্ষর নেন।
নাম না প্রকাশে বিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষক জানান, সহকারী প্রধান শিক্ষক নেওয়া হয়েছে আমরা এর কিছু জানি না। স্কুলে কোন রকম পরীক্ষা হয় নি। আমরা কেউ তা লক্ষ্য করিনি। তবে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টি এই প্রথম আপনাদের কাছে শুনলাম। যাকে নেওয়া হয়েছে বলে আমরা জানলাম সে আগেই আমাদের স্কুলের সহকারী শিক্ষক ছিলেন। এর বাইরেও প্রধান শিক্ষক স্কুলটি তার বাসা বাড়িতে পরিণত করেন। কথায় কথায় অসভ্য ভাষা ব্যবহার করেন। শিক্ষকদের তিনি নিজের বাসার কাজের লোকের মত আচরন করতেন। চলতি বছরে নিজের আত্মীয় সহ আরো কয়েকটি নিয়োগ প্রদান করেন। যাতে করে প্রায় অর্ধকোটি টাকা ঘুষ বানিজ্য করেন। তবে টাকার বিষয়ে তিনি কারো সাথে আলাপ আলোচনা করেন না।

সদ্য নিয়োগ পাওয়ায় ওবায়দুর রহমান জানান, যা কিছু হয়েছে ভ‚ল হয়েছে দয়া করে কিছু লিখবেন না। চাকুরী না থেকেও বেতন তোলার বিষয়ে তিনি বলেন, সেটি ও ভ‚ল হয়ে গেছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রশিদুল ইসলাম, উপরোক্ত বিষয়টি আমাদের ভ‚ল হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়া স্কুলে হওয়ার দরকার ছিল কিন্তু এটা করা হয়নি। বেতন উত্তোলন বিষয়ে বলা হলে তিনি বলেন, স্বাভাবিক ভাবে প্রত্যেক মাসে স্বাক্ষর করেছিলাম। আমার দেখা উচিত ছিল।

দেবীগঞ্জ সরকারী অলদিনী বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষাক ও ডিজি প্রতিনিধি সহিদুল ইসলাম জানান, নিয়োগ প্রক্রিয়া কিছুটা গাফিলতি হয়েছে। তবে তারা এটা ঠিক করে নিবে। আমি পরীক্ষার স্থানে পরীক্ষা নিয়েছি। সেই পরীক্ষায় কে কত মাকর্স পেয়েছে আমি এ মহুর্তে বলতে পারছি না। পরীক্ষা কেন্দ্র পরীক্ষারা সকলেই উপস্থিত ছিল আমি তা দেখেছি।

দেবীগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকতা সলিমুল্লাহ জানান, বিধি মোতাবেক নিয়োগ হয়েছে। এটা আমি বলবো। তবে কে কি করলো আমি জানি না। পরীক্ষার্থী ৪ জনের কথা বলা হয়েছে তবে কে কত নম্বর পেয়েছে তা আমি জানি না।

You must be Logged in to post comment.

বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে পরামর্শ সভা সম্পন্ন     |     কোটচাঁদপুরে জামায়াত নেতার ১৭ বছরের কারাদন্ড     |     কোটচাঁদপুরে ট্রেনের ধাক্কায় এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু     |     গাংনীতে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও ক্যশিয়ারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে দাবিতে সংবাদ সম্মেলন     |     মাদারীপুরে নসিমন-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে ২ জন নিহত     |     বিএসএমআরএএইউ এর লালমনিরহাটে পঞ্চম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী     |     আটোয়ারীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা     |     গাংনীতে ছাগলে তামাক ক্ষেত খাওয়ার প্রতিবাদ: একই পরিবারের ৩ জনকে কুপিয়ে জখম     |     ঠাকুরগাঁওয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি নিয়ে নির্মিত ‘আত্নকথন’      |     ঝিকরগাছায় আরও এক ফালি ফুলের রাজ্যের সন্ধান !     |