ঢাকা, বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

প্রেম করে বিয়ে ভ‚ঞাপুরে প্রেমিকের সহযোগিতায় পানিতে ডুবিয়ে স্বামীকে হত্যা করল স্ত্রী

আ: রশিদ তালুকদার,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের ভ‚ঞাপুরে পরকীয়া প্রেমের জেরে বাবার বাড়িতে ডেকে নিয়ে কথিত পরকীয়া প্রেমিকের সহযোগিতায় হাত-পা বেঁধে নদীর পানিতে ডুবিয়ে স্বামী নাঈম হোসেনকে (২০) হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রী রেশমি খাতুনের (১৯) বিরুদ্ধে।

নাঈম উপজেলার ফলদা ইউনিয়নের মাইজবাড়ি গ্রামের শফিকুল ইসলাম দুদুর ছেলে। স্ত্রী রেশমি খাতুন উপজেলার অর্জুনা ইউনিয়নের রামাইল গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে। প্রেমিকের নাম মাসুদ (৩৫) সে একই ইউনিয়নের চর বরুয়া গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে।

বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে আটককৃত নাঈমের স্ত্রী রেশমি ও তার প্রেমিক মাসুদকে টাঙ্গাইল আদালতে প্রেরণ ও নাঈমের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গত মঙ্গলবার ২৬ ডিসেম্বর রাতে রেশমি খাতুন ও তার প্রেমিককে আটক করে পুলিশ। তাদের দেয়া তথ্যমতে নাঈমের মরদেহ পাশর্^বর্তী জামালপুরের সরিষাবাড়ি উপজেলার চর ডাকাইতাবান্দা এলাকার যমুনা নদী থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে- নাঈম হোসেন ও রেশমি তিনমাস আগে প্রেম করে পরিবারের অমতে বিয়ে করেন। গত ১৯ ডিসেম্বর নাঈম তার চায়ের দোকান বন্ধ করে স্ত্রী রেশমির সাথে শ^শুর বাড়িতে যায়। সেখানে নাঈমকে রেশমি বিকালে ঘুরতে বের হয়। রাতে রেশমি বাড়িতে গিয়ে জানায় তার স্বামী চলে গেছে। তারপর থেকে নাঈমের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

গত মঙ্গলবার বিকালে নাঈমের বাবা শফিকুল থানায় এসে জানায় তার ছেলেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পরে পুলিশ রামাইল গিয়ে রেশমিকে আটক করে। পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার স্বামীকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে। পরে তার দেয়া তথ্যমতে কথিত প্রেমিক মাসুদকে গোপালপুর থেকে আটক করে। তাদের তথ্যমতে, নদী থেকে মরদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, রেশমি এক যুবকের সাথে পরকীয়ায় আশক্ত ছিল। সে স্বামী নাঈমকে হত্যার কথা স্বীকার করে। এরআগে স্বামী নাঈমকে হত্যা করতে পরিকল্পনা অনুযায়ী চরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে যায়। এরপর সরিষাবাড়ি সীমান্ত এলাকায় গিয়ে প্রেমিকের সহযোগিতায় পানিতে ডুবিয়ে হত্যার পর মরদেহ বালু চাপা দেয়।

এ ঘটনায় ভ‚ঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আহসান উল্লাহ্ জানান, রেশমি তার স্বামী নাঈমকে রামাইল তার বাবার বাড়িতে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে পরকীয়া প্রেমিকের সহায়তায় নদীর পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করে। পরে মরদেহটি বালু চাপা দিয়ে গুম করে। রেশমিকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যার কথা স্বীকার করে এবং পরে তার দেওয়া তথ্যমতে প্রেমিক মাসুদকে আটক ও মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বুধবার সকালে কোর্টে প্রেরণ ও লাশ ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইলে প্রেরণ করা হয়েছে। হত্যার ঘটনায় নাঈমের বাবা শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ভ‚ঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

You must be Logged in to post comment.

ফুলবাড়ীতে বিজিবি কতৃক উদ্ধারকৃত সাড়ে ৭ কোটি টাকার মাদক ধ্বংস     |     ঝিকরগাছায় গাছি ও ফুল চাষীদের মাঝে উৎপাদন সামগ্রী বিতরণ     |     সাংবাদিক বিপ্লবের উপর হামলার ঘটনায় মামলা      |     ফুলবাড়ীতে ২৬টি বেসরকারী এতিমখানায় এক কোটি ৩১লাখ ২৬হাজার টাকার চেক বিতরণ।     |     ঘাটাইলে সরকারী হাসপাতালের নাকের ডগায় গড়ে উঠেছে বেসরকারি ক্লিনিক     |     লালমনিরহাটের পৃথক ঘটনায় সড়কে নিহত ২     |     মাছের আঁশে তৈরি হচ্ছে প্রসাধনী-বৈদ্যুতিক পণ্য টাঙ্গাইলের মাছের উচ্ছিষ্ট যাচ্ছে বিদেশে     |     রুহিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের উন্নয়ন সহায়তা তহবিল হতে স্কুল ব্যাগ বিতরণ     |     ঠাকুরগাঁওয়ে ছয় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার     |     ঘাটাইলে নব নির্বাচিত সংসদ সদস্যকে  সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত      |