ঢাকা, বুধবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২৪ ইং | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফাঁসি হলে হোক তবু আমি নৌকায় ভোট দিব

রবিউল এহ্সান রিপন, ঠাকুরগাঁও: জীবনের শেষে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে ঘর পেয়েছেন বৃদ্ধা আমেনা বেগম (৭০)। আধা পাকা ঘরটি তাঁর খুব পছন্দ হওয়ায় নতুন ঘরে নতুন করে স্বপ্ন বোনা শুরু করেন আমেনা। আগে অন্যের বাড়িতে পরিবারসহ আশ্রয় নেয়া আমেনা এতদিন পর নিজ গৃহে খুব ভালোভাবে থাকতে পারবেন। তাই আনন্দ যেন কমছে না তার।

আনন্দে আবেগে আপ্লুতো হয়ে তিনি প্রতিবেদককে দেখে বলেন, “তোমারা হামাক ফাসি দিলে দেন, তাহো মুই এইবার নৌকায় ভোট দিম”। হাত দিয়ে চোখ মুছতে মুছতে কথাগুলো বলছিলেন সত্তোর উর্ধ বয়সের মহিলা আমেনা বেগম।

ঘরের মালিকানা পেয়ে কেমন লাগল জানতে চাইলে আমেনা বেগম হাউমাউ করে কেঁদে উঠলেন, ওড়না দিয়ে মুখ মুছতে মূছতে বললেন, আগে তো জায়গা জমি কিছু ছিলোনা। এক বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে ছেলে মেয়ে মানুষ করছি। শেষ বয়সে এসে শেখের বেটি বাড়ি উপহার দিবে কল্পনাও করিনি। নিজের ঘরে স্বামী-সন্তান নিয়ে এখন সুখে থাকতে পারবো। আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ জানাই প্রধানমন্ত্রী যেন সবসময় সুস্থ ও ভালো থাকে।

আমেনার মত এমন অনেক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলো পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া স্বপ্নের বাড়ি। ৯-ই আগষ্ট ২০২৩ ইং রোজ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে জমি ও গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঠাকুরগাও সহ আরো এগারোটি জেলা ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষনা দেন।

ঠাকুরগাও জেলা গৃহহীন মুক্ত ঘোষনা উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহরের জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান, পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অরুণাংশু দত্ত টিটোসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

এসময় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ঠাকুরগাঁও জেলার পাঁচটি উপজেলার মধ্যে আজ ঠাকুরগাঁও সদর, পীরগঞ্জ ও রাণীশংকৈল উপজেলাকে ভুমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হলো। এর আগে বালিয়াডাঙ্গী ও হরিপুর উপজেলাকে মুক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। অর্থ্যাৎ ঠাকুরগাঁও জেলাকে ভুমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হলো এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে।

শেখ হাসিনার উপহারে হাসি ফুটেছে উত্তরাঞ্চলের জেলা ঠাকুরগাঁও এর ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষদের মুখে। ঠাকুরগাঁও জেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের মোট ৮১৮৭ টি ঘর নির্মান করা হয়েছে। যা পর্যায়ক্রমে সুষ্ঠ তালিকার মাধ্যমে ভুমি ও গৃহহীনদের ঘর বরাদ্দ চলমান রয়েছে।

প্রশাসনের কর্মকর্তারা আরো জানান, প্রথম থেকে চতুর্থ দফা পর্যন্ত আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের কাজ সম্পূর্ন করার মধ্য দিয়ে ভূমি ও গৃহহীনদের মাঝে সুষ্ঠ ভাবে ঘর বন্টন করা হচ্ছে। ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণার পরেও যদি কোন ভূমি ও গৃহহীন থাকে তাকেও ঘর বরাদ্দ প্রদান করা হবে।

You must be Logged in to post comment.

    |     ভূঞাপুরে স্ত্রী কর্তৃক স্বামীর পুরুষাঙ্গ কর্তন স্ত্রী গ্রেফতার     |     মুজিবনগর স্মৃতি কমপ্লেক্সকে আন্তর্জাতিক মানের করা হবে -আ.ক.ম মোজাম্মেল হক এমপি     |     মাদকের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার থাকতে হবে           —- রাণীশংকৈলে এমপি সুজন     |     রাণীশংকৈলে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত     |     ঝিকরগাছায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের আলোচনা সভা, চিত্র প্রদর্শনী ও দোয়া মাহফিল     |     ঝিকরগাছায় শব্দদূষণ বন্ধে অবস্থান কর্মসূচি ও ইউএনও’র নিকট স্মারকলিপি প্রদান     |     আটোয়ারীতে এমপি রেজিয়া ইসলাম এঁর মতবিনিময় সভা     |     গাংনীতে মুকুল সেবা সংস্থার উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত     |     উপজেলা নির্বাচনে মেহেরপুর সদরে ৫ জন ও মুজিবনগরে ৪ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন     |