ঢাকা, শুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর ২০২২ ইং | ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বয়কটের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

আ:রশিদ তালুকদার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বুধবার(১২ অক্টোবর) সাধারণ শিক্ষার্থীদের বয়কটের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হয়েছে।
বুধবার সকালে বিশ^বিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ডক্টর মো. ফরহাদ হোসেন কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ডক্টর মো. সিরাজুল ইসলামকে সাথে নিয়ে জাতীয় পতাকা ও বিশ^বিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর রিজেণ্ট বোর্ড সদস্য, ডিন, রেজিস্ট্রারকে নিয়ে পায়রা, বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর উদ্বোধন করেন।
দিনব্যাপী কর্মসূচির মধ্যে ছিল- জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মুর‌্যাল ও মওলানা ভাসানীর মাজারে পুস্পস্তবক অর্পণ, আনন্দ শোভাযাত্রা, দোয়া ও মোনাজাত, কেক কাটা ইত্যাদি। কর্মসূচিতে অনুষদের ডিন, রেজিস্ট্রার, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, হল প্রভোস্ট, শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন, ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী সমিতির নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
কিন্তু সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সকল কর্মসূচি বয়কট করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠনগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মঙ্গলবার(১১ অক্টোবর) বিকালে ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া সকল কর্মসূচি ‘বয়কট’ এর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে।
বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষার্থীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে যে সকল কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে তা সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বার্থ বিরোধী এবং এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার ক্ষুন্ন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে এ সকল কর্মসূচিতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ব্যথিত ও মর্মাহত।
শিক্ষার্থীরা জানায়, বিগত বছরগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে জমকালো আয়োজনে পুরো বিশ্ববিদ্যালয় আলোকসজ্জায় সজ্জিতকরণ, আনন্দ র‌্যালিতে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য টি-শার্ট, প্রতিটি হলে ফিস্ট মিল ও মুক্তমঞ্চে কনসার্ট- এর সুবিধা রাখা হলেও এ বছর তা করা হয়নি। এজন্য তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের নেওয়া সকল কর্মসূচি বয়কট করেছেন।
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নিবিড় পাল জানান, বিগত বছর গুলোতে শিক্ষার্থীদের জন্য যে সকল সুবিধা রাখা হয়েছিল এবার তার কিছুই রাখা হয়নি। তারা ভাইস চ্যান্সেলরকে অনুরোধ করেছিলেন প্রয়োজনে বিগত বছরের মত ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি পালনের দিন পিছিয়ে নিতে। কিন্তু তিনি কোন কথা না রেখে একক সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থী ছাড়াই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি পালন করেছেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা মানিক শীল জানান, তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে বারবার যোগাযোগ করলেও ভাইস-চ্যান্সেলর নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থেকেছেন। শিক্ষার্থীদের কোন দাবি রাখেন নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের ব্যবহারে ক্ষুব্ধ।
বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি শুভ দে জানান, সাংবাদিক সমিতির সদস্যরা বিশ্ববদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের সংবাদ প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ডক্টর মো. ফরহাদ হোসেন জানান, মূলত: বাজেট স্বল্পতার জন্য শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মেনে নেওয়া সম্ভব হয়নি। স্বল্প বাজেটের মধ্যে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য তাদেরকে বলা হয়েছিল- কিন্তু তারা তা না মেনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি বয়কট করেছে। বাধ্য হয়ে তাদের ছাড়াই স্বল্প পরিসরে প্রতিষ্ঠবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের ১২ অক্টোবর তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন

You must be Logged in to post comment.

মির্জা ফখরুলকে আটকের প্রতিবাদে ঠাকুরগাঁওয়ে বিক্ষোভ      |     বোদায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ     |     লালমনিরহাটে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল     |     চিলাহাটিতে আওয়ামী লীগের জন্য  পুনরায় ফিরে পেলো টিসিবির পণ্য সুবিধাভোগীরা।      |     লালমনিরহাটে নবাগত জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় সভা     |     ফিজু স্মৃতি গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন     |     ফুলবাড়ীতে দুই দলের সমর্থকদের প্রীতি ফুটবল ম্যাচ,বিজয়ী আর্জেন্টিনা।     |     গাংনীতে নাশকতা মামলার সন্দেহভাজন আসামী যুবদল নেতা জাহিদ আটক     |     বীরগঞ্জে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইলচেয়ার বিতরণ     |     টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় জিমে’র আড়ালে মাদক ব্যবসা ; ৩০ লাখ টাকার হিরোইনসহ নারী আটক     |