ঢাকা, শনিবার, ১লা অক্টোবর ২০২২ ইং | ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়: টাঙ্গাইলে লন্ডভন্ড ৫ শতাধিক ঘরবাড়ি, খোলা আকাশের নিচে পাঠদান

আ: রশিদ তালুকদার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে ৪ টি ইউনিয়নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদসহ ৫ শতাধিক কাঁচা ও আধা-পাকা ঘরবাড়ি লন্ডভন্ড হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে অসংখ্য ছোট-বড় গাছপালা উপড়ে পড়েছে। এছাড়া গাছের চাপায় স্কুল ছাত্রীসহ একই পরিবারের ৩ জন আহত হয়েছে।
আহতরা হচ্ছেন- উপজেলার উত্তর খিলগাতি গ্রামের আতাউর রহমান খান (৭০) ও তার ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪৫) এবং তার নাতনি এম.কে.ডি.আর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী রিয়া (১৩)।
অপরদিকে, ঝড়ের কারণে বিদ্যুতের তার ও খুটি লন্ডভন্ড হওয়ায় সকাল থেকেই ওই চার ইউনিয়নে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, শনিবার (২১ মে) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে উত্তর-পূর্ব দিক থেকে হঠাৎ প্রচন্ড বেগে আসা ঘূর্ণিঝড়টি ঘাটাইল উপজেলার দেউলাবাড়ি ইউনিয়নের দেউলাবাড়ি, উত্তর খিলগাতি ও মূখ্য গাংগাইর, সংগ্রামপুর ইউনিয়নের বোয়ালী হাটবাড়ি, চাপড়ী, দেওজানা, খুপিবাড়ী ও লাহেড়ীবড়ি। রসুলপুর ইউনিয়নের রসুলপুর, ঘোনার দেওলী, মোমিনপুর, সিংহের চালা, শালিয়াবহ। লক্ষীন্দর ইউনিয়নের লক্ষীন্দর, মুরাইদ, চারিয়াবাইদ ও ফৈটামাড়িতে আঘাত হানে।
ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ও শারীরিকভাবে কাজে অক্ষম সামাদ আকন্দ বলেন, আমার স্ত্রী সালেহা অন্যের বাড়িতে কাজ করে দিন যা আনে তাই দিয়েই আমার সংসার চলে। আমার একটি প্রতিবন্ধী মেয়ে রয়েছে। অনেক কষ্ট করে মাথা গোজার ঠাঁই করে ছিলাম কিন্তু সর্বনাশা ঝড়ে সব কেড়ে নিয়ে গেছে। সরকারের সহযোগিতা ছাড়া আমার রাতে থাকার ঠাইও মিলবে না।
রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন জানান, মেম্বারদের নিয়ে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তালিকা প্রস্তুত করছি। স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করেছি। ঘূর্ণিঝড়ে এ ইউনিয়নের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে বলে জানান তিনি।
দেউলাবাড়ি ইউনিয়নের এম.কে.ডি.আর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) মো. হায়দার আলী বলেন, ৭০ হাত করে ২টি টিনসেড বিল্ডিং সম্পুর্ণ ভাবে বিধ্বস্ত ও আরেকটি ঘর আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিল্ডিংয়ের দেয়াল ভেঙ্গে লন্ডভন্ড হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে বিদ্যালয়টির প্রায় ৪০ লাখ টাকার সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের ঘর ভেঙ্গে যাওয়ায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া মারাত্মক হুমকির মধ্যে পড়েছে। শিক্ষার্থীদের ক্লাসে আসন দিতে না পাড়ায় খোলা আকাশের নিচে পাঠদান করানো হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়ে বিদ্যালয় ক্ষতিগ্রস্তের বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। পাঠদান কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে দ্রুত বিদ্যালয়টি মেরামত প্রয়োজন।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবয়ন কর্মকর্তা মো. এনামুল হক জানান, ঘূর্ণিঝড়ে উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে ক্ষতিগ্রস্তদের নামের তালিকা ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রস্তুত করার কথা বলেছি। সে মোতাবেক ওনারা কাজ করছেন। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় দ্রুত পরিদর্শনে যাচ্ছি বলেও জানান তিনি।
এ বিষয়ে ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনিয়া চৌধুরী জানান, উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও প্রকল্প বাস্তবয়ন কর্মকর্তা ঘূর্ণিঝড় কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আছেন। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করতে বলা হয়েছে। তালিকা পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

You must be Logged in to post comment.

সনদ নেই, তবুও দাঁতের চিকিৎসক     |     ভোলায় জেলা পর্যায়ে স্কুল ভিত্তিক দাবা প্রতিযোগিতা- ২০২২ এর শুভ উদ্বোধন     |     শেরপুরে চাঞ্চল্যকর অভি হত্যা মামলা আটক-৫     |     শেরপুরে চাঞ্চল্যকর অভি হত্যা মামলা আটক-৫     |     শারদীয়া দূর্গা পুজা উপলক্ষে টানা ১০দিন বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানী- রপ্তানী বন্ধ থাকবে     |     পুঁজায় দুস্থ্যদের মুখে হাসি ফোটাতে পাশে দাড়ালেন সমাজ সেবক আনন্দ গুপ্তা।     |     মাদারীপুরে শুরু হয়েছে শেখ কামাল মিনি ফুটবল টুর্নামেন্ট     |     বীরগঞ্জে স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামী আটক     |     ডোমারে জাল স্বাক্ষরে শিক্ষক নিয়োগসহ প্রধান শিক্ষকের নানা অনিয়ম।      |     বিজ্ঞ আদালতের নিষেধাজ্ঞাকে উপক্ষো করে ঝিকরগাছার পল্লীতে বাড়ি নির্মাণ     |