ঢাকা, রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রংপুরে জন‌প্রিয় হয়‌ে ‌উঠেছে‌ ছাদ বাগান

এম.এ. শাহীন: দেশের প্রাচীনতম জেলা রংপুর। রংপুর জেলা বিভাগ হওয়ার পরেই দ্বিগুণ হারে বাড়ছে জনসংখ্যা সাথে বাড়ছে‌ আবাসস্থল। এখন চারিদিকে উঠছে নতুন নতুন  দালানকোঠা। কমছে ফসলি জমি। ফলে দিন দিন ছোট হয়ে আসছে চাষাবাদের জমি পরিমাণ। অন্যদিকে কংক্রিটের নগরীতে মানুষের গাছ লাগানোর মতো জায়গা পাওয়া এখন দুষ্কর হয়ে পড়েছে।
তাই শখ করে বাগান কিংবা নিজের পরিবারের পুষ্টির চাহিদা মেটানোর জন্য নগরীর মানুষদের জন্য ছাদের কোনো বিকল্প নেই। এসব দিক বিবেচনা করে রংপুরে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ছাদ বাগান, দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে ছাদ বাগান। সৌখিন বাগানিরা বাড়ির ছাদে গড়ে তুলেছেন নানা ধরনের ফল, ফুল ও সবজি বাগান। এসব ছাদ বাগানে বিভিন্ন জাতের মৌসুমী ফল, ফুল ও সবজি শোভা পাচ্ছে। বাগান থেকে পরিবারের সবজি ও ফলের চাহিদা মেটাচ্ছে অনেকেই।
কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, রংপুরে ৩০০ অধিক ছাদ বাগান রয়েছে। এ সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। সৌখিন বাগানিরা আরও উদ্যোগী হয়ে উঠছেন। ফলে বাড়ির ছাদে বিভিন্ন ধরনের ফলের গাছ ও নানা জাতের সবজি ও ফুলের চাষ করা হচ্ছে। এ যেন বিপন্ন প্রকৃতির মাঝে সবুজের বিপ্লব। বিশুদ্ধ অক্সিজেনের কারখানা। আর এই অক্সিজেনের কারখানা গড়ে তুলেছেন রংপুরের অনেক সৌখিন বৃক্ষপ্রেমী। কৃষি সম্প্রসারন অধিদফতরের সহযোগিতায় অনেকেই নিজের বাড়ির ছাদে গড়ে তুলেছেন ফল ও সবজির বাগান। অবসর সময়ে বাগান পরিচর্যা করছেন বাগানিরা। রংপুরের ছাদ বাগান গুলোতে ফলের পাশাপাশি আছে সবজি ও বিভিন্ন প্রকারের ফুলের গাছ।
সৌখিন ছাদ বাগানি মাসুদ বলেন, গাছের প্রতি ভালোবাসা থেকে বাগান করেছি। পরিবারের পুষ্টির চাহিদাও মিটছে। পাশাপাশি অক্সিজেনেরও চাহিদা পূরণ হচ্ছে। এ ছাড়াও আছে বিভিন্ন প্রকার গোলাপ, রাধাচূড়া, রজনীগন্ধাসহ বিভিন্ন প্রকার ফুল। অবসর সময়ে বাগানে সময় দিচ্ছি। নিরাপদ ফল ও সবজি ছাড়াও পাচ্ছি অক্সিজেন। আমার ছাদ বাগান হয়ে উঠেছে অক্সিজেন চেম্বার।
নগরীর ইসলামপুর হনুমানতলার ব্যবসায়ী বৃক্ষপ্রেমী বসির আহমেদ নিজ বাড়ির ছাদে গড়ে তুলেছেন ফলের বাগান। তিনি বাড়ির ছাদে দুই বছর আগে গড়ে তুলেছেন ফল ও সবজির বাগান। তাকে বাগানের কাজে সহযোগিতা করেন কন্যা ও স্ত্রী। বাগানে কমলা, মাল্টা, ডালিম, হিমসাগর, ব্যানানা ম্যাঙ্গ, হাঁড়িভাঙা, ফজলি আম, লেবু, পেয়ারা, আমড়া, ড্রাগন, শরিফা, জাম্বুরাসহ ২৩ প্রকার ফলের গাছ। আছে করলা, চিচিংগা, ঝিংগা, কাচা মরিচ, ক্যাপসিকাম, পুদিনা পাতা, লাল শাক ও বিভিন্ন প্রকারের ফুলের গাছ। বর্তমানে বাগানে ঝুলছে বিভিন্ন প্রকারের মৌসুমী ফল ও সবজি।
সমাজ কল্যাণ বিদ্যাবীথি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক মতলুবুর রহমান সাজুর বাগানে ঝুলছে, মাল্টা, কমলা, কামরাঙ্গা, ছবেদা, আমড়া, কদবেল, ডালিম, আমলকিসহ বিভিন্ন প্রকারের ফল। দেখলে মন জুড়িয়ে যায়। কিছু ফলগাছ আছে সারাবছর ফল ধরে। ছাদের বাগানে চাষ করা বিষমুক্ত ফল নিজেরা খাচ্ছেন, আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীদের দিচ্ছেন। বর্তমানে বাগানে বিভিন্ন প্রকার ফল ধরেছে। বাড়ির পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে সম্ভব হচ্ছে। তার দেখাদেখি বিভিন্ন ব্যক্তি ছাদে বাগান করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আমরা কৃষি বিভাগ থেকে বিভিন্ন প্রকার সহযোগিতা করে আসছি।
রংপুর পরিবার পরিকল্পনা বিভাগীয় অফিসের সুপাররেনন্টেডেন্ট মো: আহসান জামিল তাদের অফিসের পাচতলার ছাদে আম ,জাম মাল্টা, কমলা, কামরাঙ্গা, ছবেদা, আমড়া, কদবেল, ডালিম, আমলকিসহ বিভিন্ন প্রকারের ফলে গাছ আছে ।

You must be Logged in to post comment.

লালমনিরহাটে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মাদ্রাসা ছাত্র নিহত     |     ২৪শ পিছ ট্যাপেন্ডাডল ট্যাবলেটসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার     |     গাংনীতে অবৈধভাবে নদীর মাটি কেটে বিক্রি। প্রশাসনকে অবহিত করার পরও নেয়া হয়নি ব্যবস্থা     |     পার্বতীপুরে ট্রেন লাইনচ্যুতির  ৯ ঘন্টা পর উত্তরবঙ্গে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক      |     রংপুর বিভাগীয় প্রাক-বাজেট আলোচনা সভা অনু‌ষ্ঠিত     |     মেহেরপুরে মাদকসহ পাঁচারকারি গ্রেফতার : র‌্যাবের ব্রিফিং     |     জমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠিত হলো  ঢাকায় অবস্থিত ফুলবাড়ীবাসির মিলনমেলা      |     ঝিকরগাছা থানার দু’এএসআইসহ এক কনস্টেবলের বিদায় সংবর্ধনা     |     ঝিকরগাছায় পেন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কিশোরীদের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত     |     স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করতে চাই: এমপি শিমুল     |