ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং | ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শীতের জেলায় নেই আবহাওয়া অফিস, স্থাপনের দাবি সকলের

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: দেশের উত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁও। জেলার পাঁচটি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলা ব্যতীত চারটি উপজেলায় সীমান্ত ঘেঁষা। পাশ্ববর্তী দেশের সর্বোত্তরের জেলা পঞ্চগড়। হিমালয়ের পাশাপাশি ও সীমান্ত ঘেঁষা হওয়ায় এ জেলায় শীতের প্রকোপ বেশি থাকে। সবার আগে শীত আসে মাঝখানে জেকে বসে। আবার সবার পরে শীতের বিয়োগান্ত ঘটে। তবে শীতের জেলা হলেও এ জেলার মানুষ জানতে পারেন না কোনদিন কত ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় দিন কাটে তাদের। এতে করে ক্ষতির মুখে পড়ছেন কৃষক ও পেশাজীবি মানুষেরা।

শীতের দাপটে এ জেলার মানুষ অভ্যস্ত হলেও এবারে তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন। চলতি বছরের শুরুতে শীতের প্রকোপে পরেছেন জেলার মানুষ। সারাদিন ঘন কুয়াশায় আচ্ছাদিত চারপাশ আর হিমালয়ের হিম শীতল বাতাসে স্থবির হয়ে পরেছে জনজীবন।

রংপুর আবহাওয়া অফিসের তথ্যমতে, ২৮ জানুয়ারি রোববার (সকাল ৬ টায়) জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত পাঁচ মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এটি। অথচ আবহাওয়া অফিস না থাকায় সঠিক তাপমাত্রার তথ্য বিভ্রান্তিতে পড়েছেন জেলার সকল মানুষ।

আবহাওয়া অফিস না থাকার ফলে, গণমাধ্যম কর্মীরা সঠিক তাপমাত্রার খবর প্রচার করতে ব্যর্থ হচ্ছেন। সেই সাথে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পরেছেন কৃষকেরা। অনেকের আলু ক্ষেতে পচন রোধ ও বোরোধানের বীজতলা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সারাদেশে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কথা থাকলেও সঠিক তথ্যের অভাবে বন্ধ হচ্ছে না প্রতিষ্ঠান গুলো। এতে করে তীব্র শীতেও শিক্ষার্থীদের আসতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানে।

ঠাকুরগাঁও জার্নালিস্ট ক্লাবের সভাপতি রেজাউল প্রধান বলেন, শীতের সময়ে তাপমাত্রা নিয়ে প্রতিনিয়ত আমাদের আপডেট দিতে হয়। অনেক সময় পাশ্ববর্তী জেলা আবহাওয়া অফিস থেকে তথ্য নিতে হয়। আবার কখনো মুঠোফোনে দেখে তথ্য দিতে হয়। এতে করে আমরা সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হই।

ঠাকুরগাঁও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকতার হোসেন বলেন, নির্দেশনা অনুযায়ী ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর নিচে হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণী পাঠদান বন্ধ রাখার কথা রয়েছে। আবহাওয়া অফিস না থাকার কারনে এরকম সিদ্ধান্ত নেওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। মুঠোফোনে একেক সময় একেক রকম তাপমাত্রা দেখা যায়।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের উপ-পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, এ জেলার অধিকাংশ মানুষ কৃষির সাথে সম্পৃক্ত। আবহাওয়া অফিস হলে আগ থেকে পূর্বাভাস জানা সম্ভব হবে। এতে করে কৃষকরা ফসলের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবে।

ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, জেলায় আবহাওয়া অফিস হলে ভালো হয়। আমরা বিষয়টি অধিদপ্তরকে অবহিত করব।

You must be Logged in to post comment.

বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে পরামর্শ সভা সম্পন্ন     |     কোটচাঁদপুরে জামায়াত নেতার ১৭ বছরের কারাদন্ড     |     কোটচাঁদপুরে ট্রেনের ধাক্কায় এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু     |     গাংনীতে মসজিদ কমিটির সভাপতি ও ক্যশিয়ারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে দাবিতে সংবাদ সম্মেলন     |     মাদারীপুরে নসিমন-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে ২ জন নিহত     |     বিএসএমআরএএইউ এর লালমনিরহাটে পঞ্চম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী     |     আটোয়ারীতে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা     |     গাংনীতে ছাগলে তামাক ক্ষেত খাওয়ার প্রতিবাদ: একই পরিবারের ৩ জনকে কুপিয়ে জখম     |     ঠাকুরগাঁওয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি নিয়ে নির্মিত ‘আত্নকথন’      |     ঝিকরগাছায় আরও এক ফালি ফুলের রাজ্যের সন্ধান !     |