ঢাকা, শুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি ২০২৩ ইং | ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

স্বাস্থ্য সচিবের পরিবার বনাম মৌয়ালের জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব বাড়িতে অবরুদ্ধ মৌয়াল, অভিযোগ আমলে নেয়নি পুলিশ

জাহিদ হাসান,মাদারীপুর প্রতিনিধি:স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয়ের সচিব ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে দিন মজুর এক মৌয়ালের বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। সচিবের বাড়ির রাস্তা প্রশস্ত করতে জমির মালিকদের প্রত্যেক ওয়ারিশের পরিবার থেকে একজন করে সরকারী চাকুরী ও নগদ টাকা দেয়ার প্রলোভনে জমি দখল করে নেয়ার অভিযোগও রয়েছে। কয়েকজন ওয়ারিশ থেকে কিছু অংশ জমি নিয়ে পুরো বাড়ি দখলের পায়তারা করার চেষ্টা করছে বলেও জানা যায়। মামলা ও প্রশাসনিক ক্ষমতা ব্যবহার করে নানাভাবে হয়রানী করা হয় বলে জানায় ভুক্তভোগী পরিবারটি। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী পরিবারটি স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে ধন্যা দিয়ে কোন ফল না পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সহ কয়েকটি দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন, জায়গা দখল, মামলা হামলার, মাধ্যমে হয়রানী করার বিষয়ে। মিথ্যা মামলা দিয়ে মৌয়ালকে আটক করে রাতের আধারে জমি দখল করার অভিযোগও করেন ওই মৌয়াল।জমি দখল করে নেয়ার পরে সরু একটি টিনের ঘরে বসবাস করে দিন পার করতেছিল পরিবারটি। দুদিন ধরে সেই ঘরে যাতায়াতের সরু রাস্তাটিও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে রাতের আধারে। বর্তমানে পরিবারটি অবরুদ্ধ হয়ে বাবার কবরের উপর দিয়ে যাতায়াত করছে নিজ ঘরে। ঘটনার দুদিন হলেও ঘটনাস্থলে যায়নি পুলিশ। পুলিশ জানায় খোজ খবর নিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হলে পুলিশ সেখানে যাবে। বিষয়টি সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়েছে। এমন ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে স্থানীয় সচেতন মহল। দ্রুত এ সমস্যার সমাধান ও ন্যায় বিচারের দাবি ভুক্তভোগী পরিবার ও সচেতন মহলের।

অভিযোগ ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ের সচিব সাইফুল ইসলাম বাদলের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলার পূর্ব টুবিয়া গ্রামে। কর্মজীবনে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে চাকুরী করেন তিনি। বর্তমানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে কর্মরত আছেন তিনি। প্রায় দুই যুগ আগে মাদারীপুর শহরের টিবি হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকার শামচু বেপারীর নিকট থেকে ২৪ শতাংশ জমি ক্রয় করেন সচিব ও তার ভাইয়ের নামে। পরে রাস্তার জন্য স্থানীয় সোহরাব মুন্সি নামে এক ব্যাক্তির নিকট থেকে আরও ৪ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। বাড়ি কাজ শুরু করার পর থেকে প্রায় দুই একর জমি বিভিন্ন উপায়ে নিজ দখলে নেন ওই সচিব ও তার পরিবার। অবশেষে বাড়ি থেকে বের হতে তেমন বড় কোন রাস্তা না থাকায় প্রতিবেশি মৌয়াল আসলাম বেপারীকে টার্গেট করেন তিনি। মৌয়াল ও তার বোনদের নগদ টাকা ও সরকারী চাকুরী দেয়ার প্রলোভনে লিখে নেন ৯ শতাংশ জমি। সামান্য কিছু টাকা দিলেও কাউকে চাকুরী দেননি সচিব। এ নিয়ে শুরু হয় মৌয়াল ও তার বোনদের সাথে দ্বন্দ্বের। মৌয়ালের ও তার বোনদের কাউকেই সচিব ন্যায্য পাওনা বুঝিয়ে দেননি। তারা প্রতিবাদ করে ও স্থানীয়দের কাছে বিষয়টি জানালে কোন কর্নপাত করেননি সচিব। বিভিন্ন সময়ে হামলা ও মামলার শিকার হতে থাকে মৌয়ালের পরিবার। মৌয়ালের বিরুদ্ধে সচিবের পরিবারের লোকেরা বিভিন্ন সময়ে মামলা-হামলা ও কারনে অকারনে অভিযোগ দিয়ে হয়রানী করেছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। তাই সেই হয়রানী থেকে মুক্তি পেতে ২০২২ সালের ১১ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য একটি আবেদন করেন মৌয়াল আসলাম বেপারী। আবেদনে আসলাম উল্লেখ করেন, তিনি ও তার ৪ বোন মাদারীপুর জেলার ১০৮ নং সৈদারবালী মৌজায় বি. আর. এস ৩৫৭ নং খতিয়ানে ১৭৩ নং দাগে ২০ শতাংশ জমি তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি। মৌয়ালের পুত্র সাইফুল বেপারীকে ও তার ভাগ্নে রাসেল হোসেন,আল-আমিন হাওলাদার,ফারুক হাওলাদারকে সরকারি চাকুরি দেওয়ার কথা বলে মৌয়াল ও তার বোন রুপবান,সাহানা ও রেহেনা বেগমের কাছ থেকে ৯ শতাংশ সম্পত্তি সচিবের স্ত্রী শাহিনা আক্তার এবং তার মা মোসাঃ শেতারা বেগমদের নামে লিখে নেন। এছাড়া চাকুরী দেয়ার নামে অনেকের জমি হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগও রয়েছে। নগদ টাকা ও চাকুরী না দেয়ায় মৌয়াল জমি দখল করতে না দিলে মৌয়াল আসলাম বেপারী ও তার পরিবারকে ক্ষমাতার অপব্যবহার করে বাড়ি ছেড়ে যেতে বলে। তারা তাদের জমির ন্যায্য মূল্য চাইলে সচিবের পরিবার তাকে হত্যার হুমকি দেন। জমি আত্মসাতের বিষয়ে সুবিচার দাবি করেন ওই মৌয়াল। এর পর সেই জমি ফেরৎ পাওয়ার জন্য আদালতে টাকা দাখিল করেন মৌয়াল আসলাম। সেই মামলার নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই ২০২২ সালের ১১ নভেম্বরের চাঁদা দাবির অভিযোগে সচিবের ভাতিজা ক্বারী রাশেদুল ইসলাম বাদী হয়ে মৌয়াল আসলামকে প্রধান আসামী করে ৬ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করে। ওই মামলায় মৌয়াল আসলামসহ পরিবারের ৪জনকে আটক করে পুলিশ। সেই মামলায় পুলিশ তাদের আদালতে প্রেরণ করলে, আদালত চারজনকে জেল হাজতে প্রেরণ করে। জেল হাজতে থাকা কালিন ফাকা বাড়ি পেয়ে রাতের আধারে মৌয়াল আসলামের বসত ঘরসহ ভাড়াটিয়া থাকা মোট ৮টি ঘর ভেঙ্গে জমি দখল করে নেয় সচিবের পরিবার। অবশিষ্ট ৯ ফিট প্রস্থ সেই ভাঙ্গা ঘরেই বসবাস করতে থাকে আসলাম। তবে ঘর থেকে বের হওয়ার জন্য কোন রাস্তা রাখা হয়নি। জেল থেকে বের হয়ে আসলাম চলতি বছরের ০৮ জানুয়ারী সচিবের বড় ভাই কালাম মোল্লাসহ ০৮ জনের বিরুদ্ধে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্টেট আদালতে, অনধিকার প্রবেশ করে বাড়িঘর ভাঙচুর, অবৈধভাবে জমি দখল ও লুটের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করে। সেই মামলা তুলে নিতে আসলাম ও তার পরিবারের লোকদের বিভিন্নভাবে চাপ দেয়া হয়। মামলা তুলে না নিলে আসলামের বাবার কবরের পাশে থাকা সরু জায়গাটিও অবশেষে আটকে দেয়া হয় সোমবার রাতের আধারে। এখন মৌয়াল আসলাম বাড়িতে অবরুদ্ধ অবস্থায় বসবাস করছেন। জরুরী প্রয়োজন হলে বাবার কবরের উপর দিয়েই তাকে বাহিরে যাতায়াত করতে হয়। এ ঘটনায় আসলাম জরুরী সহযোগীতার জন্য ৯৯৯ কল দিলে, সেখান থেকে তাকে থানায় গিয়ে অভিযোগ দিতে বলেন। বিগত দিনে বহুবার ওই সচিবের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দিয়ে কোন সহযোগীতা পায়নি বলে থানায় যেতে চায়নি ভুক্তভোগী। পরে থানা থেকে কল দিয়ে তার অভিযোগ নেয়া হবে বলে আশ^াস দিলে মঙ্গলবার সকালে আসলাম থানায় গিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ২ দিন পার হলেও বুধবার দুপুর পর্যন্ত ঘটনাস্থলে আসেনি পুলিশ।
স্থানীয় আকবর বেপারী বলেন, সচিব গরিব পরিবারটির উপর অন্যায় করছে। ক্ষমতা চিরকাল থাকে না। এলাকার মানুষই বিপদে পাশে থাকবে। আসলামের বাড়ির পিছনে আরেকটি জমি কিনেছে সচিব। আসলামের কারনে দুটি বাড়ি এক করতে পারছে না সচিব সাহেব। তাই তাকে উচ্ছেদ করতে সব ধরনের চেষ্টাই করছেন সে। গরিব বলে কি আসলাম বিচার পাবে না । এলাকার সবাই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে। কেউ সামনে গিয়ে প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না।
ভুক্তভোগী রেহেনা আক্তার (মৌয়ালের বোন) বলেন, জমি বায়নাপত্র করে ছেলেকে সরকারী চাকুরী দেয়ার পরে জমি লিখে নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রতারনা করে রেজিস্ট্রি বায়নার নামে জমি লিখে নেয় সচিব তার মায়ের নামে। জমি গেল,টাকাও পেলেন না। উল্টো মামলা দিয়ে হয়রানী করছে তালিকাভুক্ত রাজাকার রজ্জব মোল্লার ছেলে বাদল সচিব । রাজাকারের বংশের অত্যাচার থেকে মুক্তি চান সে। স্থানীয় প্রশাসন,পুলিশ ও সাংবাদিকরা সব ঘটনায়ই আসে । গরিব বলে কেউ তাদের পাশে থাকে না। সরকারের কাছে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন সে।
ভুক্তভোগী রাসেল হোসেন (মৌয়ালের ভাগ্নে) বলেন, সচিবকে জমি দিলে সে সরকারী চাকুরী দিয়ে দিবে বলেছিল। তাই তাকে জমি লিখে দিতে রাজি হয়েছিলো সে। জমি লিখে নিলো চাকুরীও দিলো না। উল্টো চাঁদাবাজি মামলায় আসামী করে রেখেছে তাকে। মিথ্যা মামলা থেকে মুক্তি ও ন্যায় বিচার আশা করেন ওই ভুক্তভোগী।
মৌয়াল আসলাম বলেন, তার বোনদের কাছ থেকে গোপনে বায়নাপত্র করার নাম করে জমি লিখে নিয়েছে সচিব। পরে তিনি জমি ফেরৎ পেতে কোর্টের মাধ্যমে টাকা দাখিল করেছেন । মামলার রায় হওয়ার আগেই তার পরিবারের চারজনকে মিথ্যা চাঁদাবাজী মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়ে রাতের আধারে ৮টি ঘর ভেঙ্গে জমি দখল করে নেয়। এছাড়া দেয়াল টেনে ঘরে ঢোকার রাস্তাটিও বন্ধ করে দেয়া হয়। বর্তমানে যাতায়াতের সরু রাস্তাটিও আটকে দিয়েছে দুদিন ধরে। বর্তমানে তার বাবার কবরের উপর দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। তার ক্ষমতা ও অবৈধ টাকা আছে বলেই এসব করতে পারছেন তিনি। স্থানীয় প্রশাসনসহ সরকারের কাছে ন্যায় বিচার দাবি করেন তিনি।
এ বিষয়ে ক্বারী রাশেদুল ইসলাম (সচিবের ভাতিজা ও চাঁদাবাজী মামলার বাদী) বলেন, তিনি চাদাবাজী মামলার বাদী। এ বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না। তিনি উল্টো অভিযোগ করে বলেন, মৌয়াল আসলাম নিজেই রাস্তা বন্ধ করে তার বাবার কবরের উপর দিয়ে যাতায়াত করলে কিছু করার নেই।
এ বিষয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ের সচিব সাইফুল ইসলাম বাদলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি একটি মিটিং এ ব্যস্ত আছেন । পরে কথা বলবেন।
এ বিষয়ে মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, অভিযোগের বিষয়টি তার জানা নেই। সবকিছু খোজ খবর নিয়ে পরে পুলিশ পাঠানোর কথা বলেন তিনি।
মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো.আলাউল হাসান বলেন, অভিযোগ দিলেতো পুলিশ গিয়ে বিষয়টি দেখার কথা। বিষয়টি কি হয়েছে খোজ নিয়ে দেখি। অভিযোগ দিলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

You must be Logged in to post comment.

আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া     |     গাংনীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৩ জন আহত     |     রানীশংকৈলে  ৩’শত মন্ডবে পালিত হলো বিদ্যা ও জ্ঞানের দেবী সরস্বতী পুজা      |     পঞ্চগড়ে ৫ শতাধিক অসহায় ও দুস্থদের মাঝে যুবদলের শীতবস্ত্র বিতরণ     |     ফুলবাড়ীতে করোনার চতুর্থ ডোজ গ্রহনে আগ্রহ কম,নেই প্রচার প্রচারোনা।     |     ঘাটাইলে ইটভাটায় পুড়ছে বনের কাঠ     |     পঞ্চগড়ে ট্রাক্টর উল্টে নিহত ১, আহত ২     |     ঝিকরগাছায় দীর্ঘপ্রতিক্ষার পর কমিটি পেল পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগ     |     দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ না করার শর্তে ক্ষমা পেলেন ষোলটাকা ইউপি চেয়ারম্যান পাশা     |     পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধায় পালিত হল আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস     |